বুধবার ১৭ অগাস্ট ২০২২ ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘বিদেশী হত্যাকারীরা এখন গোয়েন্দা নজরদারিতে’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ২ বিদেশী নাগরিক হত্যা মামলায় সরকার কোনো কিছু আড়াল করছে না। তবে ইতালিয়ান নাগরিক তাবেলা সিজার হত্যাকান্ডের মূল হোতারা গোয়েন্দা নজরদারিতে আছে। এদের মধ্যে কেউ বিদেশে পালিয়ে গেলে ইন্টারপোলের মাধ্যমে তাদের দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। তিনি বলেন, এ নিয়ে কোনো জজ মিয়া নাটক হবে না। বিদেশী হত্যাকান্ডের ঘটনায় বড়ভাইসহ রাজনীতিবিদরা জড়িত রয়েছেন। আজ মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।
আসাদুজ্জামান কামাল বলেন, দুই বিদেশী নাগরিক হত্যায় রাজনৈতিক দলের সংশ্লিষ্টতার তথ্য-প্রমাণ পাওয়া গেছে। হত্যাকান্ডের রহস্য দু-একদিনের মধ্যে বিস্তারিত জানানো হবে। গোয়েন্দারা হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করেছেন। তা মিলিয়ে দেখার জন্য বিলম্ব হচ্ছে। তিনি বলেন, সব কিছু গুছিয়ে আনা হয়েছে। দু’এক দিনের মধ্যেই এ হত্যাকান্ডের মূল রহস্য উন্মোচন হবে।
এদিকে ২ বিদেশী হত্যাকান্ডের তদন্তের অগ্রগতিতে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত পিয়েরে মায়াদু। তিনি বলেন, কোন ধরনের শঙ্কা ছাড়াই বিদেশিরা নির্বিঘ্নে চলাচল করছে। ২ বিদেশি হত্যার তদন্ত নিয়েও ইতিবাচক মনোভাব জানান তিনি। তবে স্বারাষ্ট্রমন্ত্রী এটি নিশ্চিত যে, কিছু দুর্ঘটনা ঘটেছে বাংলাদেশে। তিনি বলেন, বিদেশীদের নিরাপত্তার জন্য বিশেষ নিরাপত্তা দিচ্ছে পুলিশ। আমরা অপরাধীদের গ্রেফতারের জন্য অপেক্ষা করছি এবং আমি বিশ্বাস করি যে, এই অপেক্ষার সমাপ্তি ঘটবে। অপরাধীদের গ্রেফতার করতে আন্তরিক রয়েছে সরকার।
প্রসঙ্গত আগামীকাল বুধবার ইতালির নাগরিক তাভেল্লা হত্যার ১ মাস পূর্ণ হবে। পরের সপ্তাহে রংপুরে এক জাপানি নাগরিক খুন এবং ২টি ঘটনার পর আইএসের দায় স্বীকার, দেশে বিদেশে ব্যাপক চাঞ্চল্যের জন্ম দেয়। তবে সরকারের পক্ষ থেকে বারবার দাবি করা হচ্ছে, অপরাধীদের ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হাতে আছে। অপরদিকে সোমবার ৪জনকে গ্রেপ্তারের তথ্য জানিয়ে পুলিশ জানায়, পলাতক এক বড় ভাইয়ের নির্দেশে গ্রেপ্তার ৩জন এই হত্যাকান্ড ঘটায়। এর উদ্দেশ্য ছিল বিদেশি কাউকে হত্যা করে সরকারকে বেকায়দায় ফেলা।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email