রবিবার ১৪ অগাস্ট ২০২২ ৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিরল থানা পুলিশের বিরুদ্ধে অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে

তাজুল ইসলাম, বিরল (দিনাজপুর) থেকে : বিরল থানা পুলিশের বিরুদ্ধে মাদক প্রতিরোধ অভিযানের নামে পুলিশ আইন (৩৪ ধারা) প্রয়োগ করে ধৃতদের অভিভাবকদের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, বিরল উপজেলার রানীপুকুর ইউনিয়নের কাজিপাড়া গ্রামের আব্দুস সালামের পুত্র ওবায়দুর রহমান , বিজোড়া ইউনিয়নের ভবানীপুর (বানিয়াপাড়া) গ্রামের আব্দুস সামাদের পুত্র আনারুল ইসলাম ও বিরল পৌর এলাকার পাইকপাড়া গ্রামের মৃতঃ আব্দুল মজিদের পুত্র সোবহান আলীকে মাদক সেবনের অপরাধে বিরল থানার পুলিশ গত শনিবার গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসার পর শুরু হয় দর কষাকষি। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা না দিয়ে পুলিশের (৩৪ ধারা) আইনে মামলা করে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়। এর বিনিময়ে পুলিশ হাতিয়ে নেয় গ্রেফতারকৃত পরিবারের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা। নাম প্রকাশ না করার শর্তে জনৈক এক অভিভাবক জানান, ভ্রাম্যমান আদালতে নিলে নির্ঘাত জেল হবে। নরমাল ধারায় কোর্টে পাঠালে জামিনে বেরিয়ে আসবে, আর এ জন্য খরচ করতে হবে। তাই সন্তানকে নিশ্চিত সাজার হাত থেকে বাঁচাতে বড় বাবুকে ম্যানেজ করতে টাকা লাগলো। কত টাকা লাগলো এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি পরিমান বলা যাবে না বলে জানান। এ ব্যাপারে বিরল থানার অফিসার ইনচার্জ তাপস চন্দ্র পন্ডিত এর কাছে মাদক সেবনের অপরাধে ধৃতদের বিরুদ্ধে মাদক সেবন আইনে মামলা হয় না কেন, জানতে চাইলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে এভাবে আমাকে চার্জ করে প্রশ্ন করতে পারেন না বলে জানান।

 

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email