শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিয়ে করলে উপবৃত্তি বন্ধ : শিক্ষামন্ত্রী

এইচএসসি কিংবা সমমানের কোন পরীক্ষার্থীর সরকারি উপবৃত্তি পাওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই ‘অবিবাহিত’ হতে হবে বলে সংসদে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। মন্ত্রীর তথ্য অনুযায়ি, ‘হায়ার সেকেন্ডারি ফিমেল স্টাইপেন্ড প্রকল্পের মাধ্যমে ৪০ শতাংশ ছাত্রী ও ১০ শতাংশ ছাত্রদের উপবৃত্তি প্রদান করা হয়। এই প্রকল্পের উপবৃত্তি পাওয়ার যে দুটি শর্ত দেয়া হয়েছে তার একটি হলো এইচএসসি কিংবা সমমান পরীক্ষা পর্যন্ত ‘অবিবাহিত’ থাকতে হবে। অপর শর্তটি হলো শতকরা ৭৫ দিন কলেজে উপস্থিতি থাকতে হবে। সংসদে আজ প্রশ্নোত্তর পর্বে এ.কে.এম. মাঈদুল ইসলামের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব তথ্য জানান।
তিনি আরো জানান, এই প্রকল্পের আওতায় ২০১৩-১৪ অর্থ-বছরে ৪০ লাখ ২০ হাজার জন শিক্ষার্থীকে ১০৪ কোটি ৯০ লাখ টাকা উপবৃত্তি প্রদান করা হয়েছে।
শিক্ষা মন্ত্রী আরো জানান, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় মাধ্যমিক স্তরে তিনটি, উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে একটি এবং স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ে একটি প্রকল্পের মাধ্যমে উপবৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে। এসব প্রকল্পের মাধ্যমে ২০০৯ থেকে ২০১৩-১৪ পর্যন্ত ৬৪ জেলায় এক কোটি ৪২ লাখ ৫৮ হাজার ২১৬ জন শিক্ষার্থীকে দুই হাজার ৫৩৬ কোটি ১৯ লাখ ৩৪ হাজার টাকা উপবৃত্তি প্রদান করা হয়েছে।
মাধ্যমিক স্তরের প্রকল্পগুলো হলো সেকেন্ডারি এডুকেশন স্টাইপেন্ড প্রজেক্ট (এস.ই.এস. পি), সেকেন্ডারি এডুকেশন কোয়ালিটি এনহ্যান্সমেন্ট প্রজেক্ট (সেকায়েপ) ও সেকেন্ডারি এডুকেশন সেক্টর ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম। এ তিনটি প্রকল্পেই উপবৃত্তি পাওয়ার ক্ষেত্রে অনান্য শর্তের সাথে ‘অবিবাহিত’ থাকারও বাধ্যবাধকতা রয়েছে।
এম আবদুল লতিফের এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের যে কোন অবৈধ কার্যক্রম বন্ধে সরকার বদ্ধ পরিকর। ইতোমধ্যে কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবৈধ ক্যাম্পাস/শাখা বন্ধে কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবৈধ কার্যক্রম বন্ধে সরকার বদ্ধ পরিকর। ইতোমধ্যে কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ের অবৈধ ক্যাম্পাস বন্ধ করা হয়েছে। চট্টগ্রামে তিনটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অবৈধ ক্যাম্পাসে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছিল। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। এরমধ্যে দুটি বিশ্ববিদ্যালয় আবার আদালতে স্থগিতাদেশ নিয়ে কার্যক্রম পরিচালনা করছে। মামলা নিস্পত্তি হলেই সরকার পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।
সব মাদ্রাসায় জঙ্গীবাদ হচ্ছে এ অভিযোগ ঠিক নয়
এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, সব মাদ্রাসায় জঙ্গীবাদ হচ্ছে এ অভিযোগ ঠিক নয়। বিশেষ কিছু মাদ্রাসা এর সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে। এ বিষয়ে সরকারের জঙ্গীবাদ বিরোধী মনিটরিং এবং শিক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে বিভিন্ন মাদ্রাসা পরিদর্শন করে জঙ্গীবাদ বিরোধী প্রচারণা কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এছাড়া সরকার জঙ্গীবাদ দমনে কাজ করে যাচ্ছে।

Spread the love