বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১ ১১ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বীরগঞ্জে গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু

বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে বৃষ্টি রানী রায় (১৯)নামে এক গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। বৃষ্টি রানী রায় উপজেলার শিবরামপুর ইউনিয়নের সিংহদানী গ্রামের পরিমল বর্মনের স্ত্রী।

সোমবার দুপুরে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ। এ ব্যাপারে বীরগঞ্জ থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

থানা সুত্রে জানা যায়, গত ৬মাস পুর্বে উপজেলার শিবরামপুর ইউনিয়নের সিংহদানী গ্রামের মহাদেব বর্মনের ছেলে পরিমল বর্মন (২২)এর সাথে একই উপজেলার সাতোর ইউনিয়নের ডাকেশ্বরী গ্রামের দিলিপ রায়ের একমাত্র মেয়ে বৃষ্টি রানী রায়ের সাথে বিয়ে হয়। গত রবিবার সন্ধ্যা আনুমানিক ৭টায় বৃষ্টি রানী রায় নিজ ঘরে শাড়ীতে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে পরিমল বর্মন মোবাইল ফোনে তার শ্বশুর দিলিপ রায়কে জানান। সংবাদ পেয়ে দিলিপ রায় রাতেই মেয়ের বাড়ীতে ছুটে যান এবং সোমবার সকালে বিষয়টি লিখিত ভাবে বীরগঞ্জ থানাকে অবহিত করেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল শেষে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

বৃষ্টি রানী রায়ের স্বামী পরিমল বর্মন জানান, রবিবার স্ত্রীসহ শ্বশুর বাড়ীতে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আমন চারা রোপনের কাজ থাকায় শ্বশুর বাড়ী যাওয়া হবে না বলে স্ত্রীকে বিষয়টি জানিয়ে বিকেল বাড়ী থেকে বেড়িয়ে যায় পরিমল বর্মন। পরে সন্ধ্যা আনুমানিক ৭টায় বাড়ীতে ফিরে এসে ঘরে স্ত্রীকে শাড়ী দিয়ে ফাঁস দেওয়া অবস্থায় দেখতে পায়। বিষয়টি তাৎক্ষণিক ভাবে শ্বশুর দিলিপ রায়কে জানান সে।

তবে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করে বৃষ্টি রানী রায়ের বাবা দিলিপ রায় জানান, ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে জানালেও আমরা গিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশ দেখতে পাইনি। নিহতের গালে এবং গলায় আঘাতের চিহৃ দেখতে পেয়েছি। ইতি পূর্বে কয়েকবার বৃষ্টিকে স্বামী পরিমল বর্মন এবং শ্বাশুড়ী মিনতি বর্মন মারধর করেছে বলে তিনি আরও দাবি করেন।

বীরগঞ্জ থানার ওসি মোঃ আব্দুল মতিন প্রধান জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email