বুধবার ৪ অগাস্ট ২০২১ ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বীরগঞ্জে ছাদ বাগানে হাজারি লেবু চাষ

মোঃ মীর কাসেম লালু ॥ প্রযুক্তির উৎর্কষতায় ছোট হয়ে এসেছে পৃথিবী। নগরায়নের কারনে সংকুচিত হচ্ছে চাষ যোগ্য জমি। মানুষের প্রয়োজন ও শখ প্রতিনিয়ত খুঁজছে বিকল্প পথ। আগে চাষাবাদ এবং বিভিন্ন ফল ও ফুলের বাগান হতো মাটিতে। । এখন মানুষের চাহিদা ও শখ পুরনের চেষ্টা চলছে সারাদেশের বড় বড় দালানের ছাদে।
বীরগঞ্জ শহরের বাসিন্দা জয়নন্দ কলেজের সহকারী অধ্যাপক নীল রতন সাহা নিপুর এমন একটি ছাদ বাগান নজর কেড়েছে সকলের। বাসার ছাদে লেবু ও ফুলের চাষ করে আর্থিক ভাবে বেশ লাভবান হয়েছেন।
নিপু সাহা জানান, ছোট বেলা থেকেই ফুলের বাগানের প্রতি আমার দুর্বলতা ছিলো। সেই আগ্রহ থেকেই প্রাইমারী স্কুলে পড়ার সময় থেকে এখন পর্যন্ত আমার বিভিন্ন ফুল ও ফলের বাগান আছে । সেই অভিজ্ঞতা থেকেই লেবুর চারা লাগিয়েছি।
প্রথমে তিনটি সিমেন্টের বড় রিং কিনেছি তাতে গোবর সারের মাটি দিয়েছি তারপর সাধারণ মাটি দিয়ে ভরাট করে তাতে হালকা পানি দিয়ে রেখে দিয়েছি। এর কয়েকদিন পর লেবুর চারা লাগিয়েছি। এক বছর পর থেকে গাছে কিছু কিছু লেবু এসেছে। প্রথম বারের ফলগুলি ফেলে দিয়েছি। পরের বছর থেকে প্রতিটি ডালে লেবু ধরেছে। এতো বেশী লেবু ধরে যে পাতা আর লেবু সমান। তাই এলাকাবাসী নাম দিয়েছে হাজারি লেবু। নিজের প্রয়োজন মিটিয়ে কিছু লেবু আত্নিয়-স্বজন,বন্ধু-বান্ধব এবং প্রতিবেশদের মাঝে বিলিয়ে দেই। এরপরও কিছু লেবু বিক্রয় করে বেশ কিছু অর্থ আয় হয়। এ্ই লেবু বাগানটি আমার অবসর সময় কাটানোর নিত্য সঙ্গী বলা যেতে পারে।
নিপু সাহা আরো জানান, অনেকে আমার কাছে ছুটে আসেন লেবু বাগানের রহস্য জানতে। আমি তাদের পরামর্শ দিয়ে উৎসাহিত করি।

পৌর শহরের বাসিন্দা মোঃ হাসান জুয়েল জানান, নীল রতন সাহা নিপুর লেবু বাগানের বিষয়ে জানতে পেরে দেখতে গিয়েছিলা। একটি গাছে এতো লেবু। আমি তো দেখে নিজে ছাদে লেবু বাগান করার জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ ব্যাপারে তার কাছে বেশ কিছু পরামর্শ গ্রহণ নিয়ে কাজ শুরু করেছি।

উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জিত রায় জানান, আমাদের এলাকায় ছাদ বাগান বেশ জনপ্রিয় হচ্ছে। উন্নত চারা রোপন এবং সঠিক পরিচর্যা করলে ছাদে এখন সব ধরণের ফল-মুলের চাষ সম্ভব।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email