শনিবার ২ ডিসেম্বর ২০২৩ ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বীরগঞ্জে ঢেপানদীর ভাঙ্গনে হুমকির মুখে ঢাকা-পঞ্চগড় মহাসড়ক

বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ বীরগঞ্জে ঢেপানদীর ভাঙ্গনে হুমকির মুখে ঢাকা-পঞ্চগড় মহাসড়ক ও ভাদগাঁ ব্রীজসহ সংলগ্ন গ্রামসমুহ নদী ভাঙ্গন রোধে জরুরী পদক্ষেপ দাবী এলাকাবাসীর।

করতোয়া নদীর শাখা আত্রাই থেকে প্রবাহিত ঢেপা নদী বীরগঞ্জ পৌরসভার সুজালপুর, মাকড়াই, উপজেলার সুজালপুর ইউনিয়নের আখিরাডাঙ্গা পাল্টাপুর ইউনিয়নের কাজল, পাল্টাপুর, কুড়ি টাকিয়া, ঘোড়াবান্দ, গ্রামসমুহের পাশ দিয়ে প্রবাহিত হয়ে দিনাজপুর জেলা সদর কাঞ্চন নদীর সাথে মিলিত হয়ে ভারতের পশ্চিম দিনাজপুরের কাচনা নদীতে প্রবেশ করেছে।

ঢেপা নদীর দুই ধারে রয়েছে অসংখ্য কবরস্থান, হাট-বাজার, মসজিদ-মাদ্রাসা, মন্দীর-শ্বশ্মান, রাস্তা-ঘাট, স্কুল-কলেজ, সরকারী অফিস-ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় ও গ্রামসমুহের ধান, পাট, ভূট্টা, গম, আলু, সরিষা, কালাইসহ বিভিন্ন ফসলের ইতিমধ্যে ঢেপা নদী ভাঙ্গনে ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়েছে।

হুমকির মুখে রয়েছে ঢাকা-পঞ্চগড় মহাসড়কের ভাদগাঁ ব্রীজ, কুড়িটাকিয়াহাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, পাল্টাপুর দাখিল মাদ্রাসা ও এতিমখানা, কুড়িটাকিয়া হাট-বাজার, সরকারী শালবন, কুড়িটাকিয়া হাট-বাজারসহ এলাকা জুড়ে ফসলের মাঠ ও কুড়িটাকিয়া হাট-বাজার হতে বীরগাঞ্জ পৌর শহরে মিলিত হওয়ার রাস্তা ও ফসলী জমির বিশাল এলাকা,।

কুড়িটাকিুয়া হাট এলাকার জনসাধারণ ঢেপা নদীর ভাঙ্গন রোধের জন্য বিভিন্ন দপ্তরে অনেতবার আবেদন করলেও অজ্ঞাত কারনে ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি। পাল্টাপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মো: আব্দুর রহমান জানান, আমি ২০ বছর ধরে চেয়ারম্যান থাকাকালে হাজার হাজার টাকা ব্যায় করে বহুবার আবেদন করেছি কিন্তু কোন লাভ হয়নি, মাঝে মধ্যে সার্ভেয়ার এসে মাপ-যোগ করে চলে যায় বাস্তবে কোন কিছু হয় না। ইউপি চেয়ারম্যান সুরেন্দ্রনাথ রায় কোকিল জানান দিনাজপুর-১আসনের জাতীয় সাংসদ মনোরঞ্জন শীল গোপালের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ঠ্য বিভাগে নদী ভাঙ্গন রোধে সরকারী অর্থ বরাদ্দের প্রস্তাব প্রেরন করেছি কিন্তু প্রয়োজনীয় বরাদ্দ মিলেনি।

সাবেক সরকারী কর্মকর্তা ও সমাজ সেবক (বীর মুক্তিযোদ্ধা) কৃষিবিদ মো: আব্দুল খালেক ও ইউপি সদস্য দুলাল চন্দ্র রায় জানান, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক সহ বিভিন্ন দপ্তরে নদী ভাঙ্গন রোধের জন্য সরকারী ও জলবায়ু ট্রাস্ট ফান্ডের অর্থায়নের মাধ্যমে প্রকল্প গ্রহনের জন্য আবেদন করলেও ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছেনা।

জনপ্রতিনিধি ও এলাকাবাসী দিনাজপুর-১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপালের মাধ্যমে গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের মাননীয় মন্ত্রীসহ প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আশু-হস্তক্ষেপে ঢেপা নদী ভাঙ্গন রোধে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ দিয়ে এলাকার প্রতিষ্ঠান ও শতশত কৃষকের কোটি কোটি টাকার একমাত্র কৃষি জমি রক্ষার জন্য জোর দাবী জানিয়েছে।

 

Spread the love