শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পার্বতীপুরে নিখোঁজের একদিন পর রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার শিশুটির জ্ঞান ফেরেনি

দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ কখন জ্ঞান ফিরবে, মা বলে ডাকবে এই আশায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে একমাত্র মেয়ের দিকে নির্বাক দৃর্ষ্টিতে তাকিয়ে আছেন মা রুপালী দাস। মেয়ের জ্ঞান না ফেরায় আতঙ্ক কাটছে না রুপালীসহ তার স্বজনদের।

দিনাজুপুরের পার্বতীপুর উপজেলার জমিরের হাট হিন্দুপাড়া মহল্লার এক পিকআপ চালকের পাঁচ বছরের শিশু কন্যা ধর্ষণের শিকার হলে বুধবার দুপুরে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভর্তি করা হয় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। এর আগে মঙ্গলবার বিকেল থেকে মেয়েটি নিখোঁজ ছিল।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মেয়েটির চাচা কামিনী দাস জানান, গত মঙ্গলবার বিকেলে মেয়েটি হঠাৎ বাড়ি থেকে উধাও হয়ে যায়। অনেক খোজাখুজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। পরে বুধবার সকালে গ্রামের লোকজন বাড়ীর অদুরে একটি হলুদ ক্ষেত থেকে অজ্ঞান অবস্থায় শিশুটিকে পাওয়া যায়। এসময় তার পড়নের জামা রক্তমাখা ছিল। উদ্ধারের পর প্রথমে স্থানীয় ল্যাম্ব হাসপাতালে এবং পরে অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় বুধবার দুপুরে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  ধারণা করা হচ্ছে কেউ ফুসলিয়ে তাকে ধর্ষণের পর হলুদ ক্ষেতে ফেলে রেখে পালিয়ে গেছে।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগের চিকিৎসক বিকাশ মজুমদার জানান, মেয়েটির অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়েছে। তার চিকিৎসা চলছে। তার অবস্থা আশংকা জনক।

পার্বতীপুর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহামুদুল আলম রক্তাক্ত অবস্থায় মেয়েটিকে উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা একটি  ও আমি নিজেও থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছি। মেয়েটির জ্ঞান ফিরলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Spread the love