সোমবার ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ২৩শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বীরগঞ্জে ৩৫টি উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও কমিউনিটি ক্লিনিকে চিকিৎসক সংকট। সরকারী চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত মানুষ

Hospitalবীরগঞ্জ(দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ বীরগঞ্জে ৩১ শর্য্যা থেকে ৫০ শর্য্যায় উন্নিত হাসপাতালে ডাক্তার না থাকায় হাজার হাজার দরিদ্র মানুষ সরকারের দেওয়া সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

উপজেলা ১১টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌর সভায় ৩ লাখ ১৭ হাজার ২৫৩ জন মানুষের বাস এরমধ্যে মহিলা ১ লাখ ৫৭ হাজার ৬৪১ জন ও পুরুষ ১লাখ ৫৯ হাজার ৬১২ জন। স্বাধীনতা উত্তর গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার দরিদ্র জনগোষ্ঠির চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করনের লক্ষ্যে একটি চেরিটরী ডিসপেনচারী থেকে ৩১ শয্যা হাসপাতাল নির্মান করা হয়। বর্তমান সরকার উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থার মাধ্যমে মানুষের দোরগড়ায়  চিকিৎসা সেবা পৌছে দেওয়ার প্রত্যয় নিয়ে ৩১ শয্যা হাসপাতাল থেকে ৫০ র্শয্যায় উন্নিত করেছে। ৩১ শর্য্যা হিসেবে ৯ জন ডাক্তার হাসপাতালে ও ইউনিয়ন উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র ২জন ও কমিউনিটি ক্লিনিকে ৮জনসহ মোট ১৯ জন চিকিৎক পদায়ন করা হয়। দীর্ঘ দিন ৪/৫ জন ডাক্তার র্কমরত থেকে চিকিৎসা সেবা প্রদান করেছে। বর্তমানে উপজেলা স্বাাস্থ্য কমপে­ক্সে ডা.আসিপ আনোয়ার ও ডা.সোহরাব হোসেন ২ জন ডাক্তার সেবা প্রদান করছেন। পাল্টাপুর ও নওপাড়া উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ২টি এবং ইউনিয়ন কমিউনিটি ক্লিনিক ৮টিতে ডাক্তার বা সহকারী কনসালটেন্ট পদ রয়েছে কিন্তু বাস্তবে নাই। বাধ্য হয়ে র্কতৃপক্ষ সকল ইউনিয়ন উপকেন্দ্র গুলো বন্ধ রেখে শুধুমাত্র উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন।

ফলে একটি ইউনিয়নে ২৮ থেকে ৩০ হাজার নর-নারী প্রত্যমত্ম পল্ল­ী গ্রামের অসহায় দরিদ্র মানুষ বিনা চিকিৎসায় রোগ যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছে। অসহায় দরিদ্র রোগিরা জানান ‘‘ ভাত নাই খাবার নাই আবার ঔষধ কিনিমো কেমন করি। সংবাদ পেয়ে গত বৃহস্পতিবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে জানা যায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ছুটি নিয়েছেন। হাসপাতালে ডাক্তার না থাকায় লাখ লাখ অসহায় দরিদ্র মানুষ বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছে। ভূক্তভোগি একদল দরিদ্র মানুষ জরুরী ভিত্তিতে সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপালের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হসত্মক্ষেপে চিকিৎসার সুন্দর পরিবেশ ফিরিয়ে দেওয়ার জোর দাবী জানান।