সোমবার ৩ অক্টোবর ২০২২ ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বীরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ প্রতিষ্ঠার ইতিহাস

মোঃ নজরুল ইসলাম খান বুলু বীরগঞ্জ(দিনাজপুর)প্রতিনিধিঃ বীরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজটি ১৯৭২সালের ৩ শে জুলাই তারিখে বীরগঞ্জ কাহারোল ও খানসামা এ তিনটি উপজেলার একমাত্র উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয় ।কলেজ প্রতিষ্ঠার সময়ে বীরগঞ্জ উপজেলার শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিত্ব মরহুম আলহাজ্ব বছির উদ্দিন আহম্মেদ,মরহুমআজিমউদ্দিন আহম্মেদ ,মরহুম আলহাজ্ব হবিবর রহমান ,মরহুম খেরাজ উদ্দিন শাহ ,মরহুম এ্যাডঃ এ,টি,এন,এম আমিনুল ইসলাম ,মরহুম আঃ খালেক,মরহুম কাবিরুল ইসলাম চৌধুরী,মরহুম আঃ বাসেদ ,মরহুম ফজলুল করিম ,মরহুম তমিজ উদ্দিনআহাম্মেদ ,প্রফেসর ললিত মোহন রায় ,স্বর্গীয় প্রতাব চন্দ্র বর্মনন ,সহ আরও অনেকে বীরগঞ্জ কলেজ প্রতিষ্ঠর উদ্দ্যোগ গ্রহন করেন । উল্লেখ্য যে , মরহুম আজিম উদ্দিন আহাম্মেদ প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন । সেসময় তরুন উদ্দ্যোগী যুবক মোঃ তরিকুল আলম, জনাব এ্যাডঃ মোঃ হামিদুল ইসলাম, জনাব মোঃ তোয়াফুর রহমান রাজা, মরহুম আব্দুর বারী, জনাব মোঃসহিদুল ইসলাম, জনাব মোঃ মিজানুর রহমান, জনাব মোঃ মহসিন আলী খান, নিত্যান্দ সাহা, মরহুম বজলার রহমান মিঞা সহ আরও অনেকে কলেজ প্রতিষ্ঠায় অগ্রনী সৈনিকের ভুমিকা পালন করেন । গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রথম মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রী মরহুম অধ্যাপক ইউসুফ আলী বীরগঞ্জ কলেজ প্রতিষ্ঠায় সহযোগীতার হস্তপ্রসারিত করেন আরও একজন ব্যক্তির কথা না বললেই নয় যিনি বীরগঞ্জ কলেজ প্রতিষ্ঠায় সাহসি ভুমিকা পালন করেন, তিনি হলেন তৎকালীন জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ হাসিনুর রহমান । এছাড়া অত্র এলাকার বিপুল সংখ্যক ব্যক্তিবর্গের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহযোগীতার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে আজকের এই বৃহৎ বিদ্যাপিঠ । তৎকালীন কলেজ পরিচালনা কমিটি ও অধ্যক্ষ্যর অক্লামন্ত পরিশ্রমে ১৯৮৪ সালে কলেজটি ডিগ্রী কলেজে উন্নীত হয় একই সঙ্গে বিএ,বি,এস,এস,বি,কম, বি,এস,সি, র্কোস চালু করা হয় । পরবর্তীতে অর্থাৎ ২০০৬ইং সালে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা (বিএম) শাখা যুগোপযেগী শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করা হয়। বর্তমানে দিনাজপুর -১ আসনের মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য জনাব মনোরঞ্জন শীল গোপাল, যিনি বীরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি, সুনামধন্য অত্র এলাকার কৃতি সমত্মান অধ্যক্ষ জনাব মোঃ খয়রুল ইসলাম চৌধুরী ও পরিচালনা পর্ষদের সুযোগ্য সকল সদস্যদের ঐক্লামিন্তীক প্রচেষ্টায় বে-সরকারী কলেজ হওয়া সত্ত্বেও ২০১০ ইং সাল হতে ৩ (তিনটি) বিষয়ে সম্মান র্কোস চালু করা সম্ভব হয়েছে। পরবর্তীতে অর্থাৎ ২০১২ সলে আরও ২ (দুই) বিষয়ে সম্মান র্কোস চালু করা হয়েছে । সম্মান র্কোসের বিষয় সমূহ হচ্ছেঃ ১। বাংলা, ২। ব্যবস্থাপনা, ৩। রাষ্ট্রবিজ্ঞান, ৪। সমাজবিজ্ঞান ও ৫। ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি । কলেজটি বীরগঞ্জ উপজেলার প্রাণ কেন্দ্রে এবং ঢাকা-পঞ্চগড় মহাসড়কের পার্শ্বে অবস্থিত । কলেজটির লেখাপড়ার মান সমেত্মাষজনক হওয়ায় ও কলেজটির সাথে পার্শ্ববর্তী উপজেলা গুলোর যোগাযোগ ব্যবস্থা অত্যন্ত ভালো থাকার কারনে প্রতি বছর এ কলেজের শিক্ষার্থীর সংখ্যা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে ।বর্তমানে কলেজটিতে ছয় হাজারে অধিক শিক্ষার্থী অধ্যায়ন করছে । বীরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজটির প্রায় ৭.৭৭ একর জায়গার উপর প্রতিষ্ঠিত । সুবিশাল ক্যাম্পাসে তিনটি বৃহৎ ত্রিতল ভবন রয়েছে।একটি সুবিশাল লাইব্রেরী রয়েছে,যাতে বর্তমানে মোট পাঠ্যসামগ্রী সহ বইয়ের সংখ্যা প্রায় ১০ (দশ) হাজার । আধুনিক শিক্ষক কমনরুম এবং ছাত্র/ছাত্রীদের জন্য পর্যাপ্ত টয়লেটের ব্যবস্থা বিদ্যমান। এছাড়াও ৪০(চল্লিশ) জন ছাত্রের একটি ছাত্রাবাস,একটি বৃহৎ শহীদ মিনার,অধ্যক্ষ্যর বাসভবন, একটি আধুনিক কম্পিউটার ল্যাব, ৫(পাঁচটি)বিজ্ঞান গবেষনাগার, একটি মসজিদ ও একটি বিশাল খেলার মাঠ রয়েছে । সামপ্রতি সময় শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর কর্তৃক বরাদ্দকৃত একটি আধুনিক ৬(ছয়) কক্ষ বিশিষ্ট আইটি ভবন নির্মান কাজ শেষ হয়েছে । সবুজ বৃক্ষরাজি আচ্ছাদিত সৃজন এ ক্যাম্পাসকে (গ্রীন ক্যাম্পাস) নামে অভিহিত করা যায় । কলেজটির পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল উল্লেখ্য করার মত, দিনাজপুর শিক্ষা র্বোডের অধীনে যাওয়ায় কলেজটি পাবলিক পরীক্ষায় উচ্চ মাধ্যমিক ফলাফলে ২(দুই)বার সেরা ২০ এর তালিকায় স্থান লাভ করে এবং গত উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা’২০১৪ দিনাজপুর জেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ৫ম স্থান অধিকার করে।বর্তমানে কলেজটিতে সর্বোমোট ৬০(ষাট)জন শিক্ষক/শিক্ষিকা এবং ৩য় ও৪র্থ শ্রেনী কর্মচারীর সংখ্যা ২৩ (তেইশ)জন। বর্তমানে দক্ষ পরিচালনা কমিটি, সুযোগ্য অধ্যক্ষ,শিক্ষক/শিক্ষিকা বৃন্দ ও কর্মচারীদের আমত্মরিক সহযোগীতায় উত্তর বঙ্গের এই ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির সাফল্য অক্ষুন্ন রয়েছে এবং আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য অঙ্গীকারাব্ধ। সুনামধন্য এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হতে দেশের বিভিন্ন সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ যেমনঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সহ মেডিক্যাল কলেজ, ও বুয়েটে উচ্চ শিক্ষা অর্জন করে বিভিন্ন সরকারী. বে-সরকারী,স্বায়ত্বসাশিত প্রতিষ্ঠানে চাকুরী করে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন সহ আর্থসামাজিক কর্মকান্ডে ব্যাপক ভুমিকা পালন করছে। এছাড়াও এ কলেজ হতে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা পাশ করে বর্তমানে প্রায় ৫০০(পাচঁশত)অধীন শিক্ষার্থী ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম,জাহাঙ্গীর নগর,হাজী দানেশ বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়,বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজ,বিভিন্ন প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়,ও বুয়েটে অধ্যায়ন করছে।

 

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email