সোমবার ১৬ মে ২০২২ ২রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বীরগঞ্জ সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট, শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত

মোঃ আবেদ আলী, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) থেকেঃ বীরগঞ্জ সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট, শিক্ষার সুন্দর পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে জরুরী পদক্ষেপ প্রয়োজন।

বীরগঞ্জের নারী শিক্ষানুরাগী ব্যাক্তিত্ব মরহুম খেরাজ উদ্দিন শাহ, আলহাজ্ব হবিবর রহমানসহ অনেকের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ও স্থানীয় গনমানুষের আর্থিক সহযেগিতায় ১৯৭৯ইং বেসরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। বিদ্যালটি দক্ষ ও মেধাবী শিক্ষকদের পরিচালনায় হাটি-হাটি-পা-পা করে অবহেলিত অঞ্চলের অসহায় নারী শিক্ষায় এগিয়ে চলার এক পর্যায় ১৯৮৪ইং রাষ্ট্রপতি লে.জেনারেল হুসেন মুহম্মদ এরশাদ বীরগঞ্জে এক রাষ্ট্রিয় সফরে এসে জনগনের জরালো দাবীর প্রেক্ষিতে সরকারী করন করলেন। সরকারী করনের পর তোসাদ্দেক হোসেন মন্টু ও আনারকলি নাজলী বেগম প্রধান শিক্ষক হিসেবে অবসর গ্রহর করেছেন। এরপর তৈয়বুন নাহার, নুরুল হক (ভারপ্রাপ্ত) তাপর প্রধান শিক্ষক হিসেবে আক্তারা পারভিন দায়িত্ব পালন করে সম্প্রতি বদলী হয়ে অন্যত্র চলে গেছেন।

বর্তমান প্রধান শিক্ষক কোরানে হাফেজ মোঃ রশিদ আলম সুচারু রূপে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে শিক্ষক সংকটে পরেছেন। বর্তমানে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে  ১২০জন, ৭ম শ্রেণীতে ১১৪জন, ৮ম  শ্রেণীতে ১১০জন, ৯ম  শ্রেণীতে ১০৫জন, ১০ম  শ্রেণীতে ৯৭জন,জিএসিতে ১০৫ ও এসএসসিতে ৯৫ বালিকা সহ সর্বমোট ৭৪৬ শিক্ষার্থী দুর-দুরান্ত থেকে ইফটিজিং , বাল্য বিবাহ, দারিদ্রতা, সকল বাধা উপেক্ষা করে উচ্চ শিক্ষার আশায় অধ্যয়নরত আছে। সরকারী বিধি-বিধান মোতাবেক ৩০জন শিক্ষার্থীর বিপরিতে একজন শিক্ষক ধরা হয়। সেক্ষেত্রে ৭৪৬জন শিক্ষার্থীর বিপরিতে ২৫জন শিক্ষক থাকা প্রয়োজন ছিল কিন্তু শিক্ষক রয়েছেন অর্ধেকেরও কম।

এ সংবাদের সত্যতা যাচাই করতে বিদ্যালয়ে গেলে প্রধান শিক্ষক কোরনে হাফেজ মোঃ রশিদ আলম জানান শিক্ষক সংকটের বিষয়ে রংপুর বিভাগের উপ পরিচালক মোঃ রফিকুল ইসলাম স্যারকে তিনি জোরালভাবে জানিয়েছেন। বর্তমানে প্রধান শিক্ষক, সহ প্রধান শিক্ষক, অফিস সহকারী, রসায়ন শিক্ষক, নৈশ্য প্রহরী, দপ্তরী, পিয়ন ও বিষয় ভিত্তিক শিক্ষক সংকটের কারনে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করতে হিমসিম খেতে হচ্ছে। অনেক সময় যে বিষয়ে দক্ষতা নেই জেনেও শিক্ষার্থীদের ধরে রাখার জন্য বাধ্য হয়ে ক্লাশে শিক্ষক পাঠাতে হচ্ছে। দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড় ও নীলফামারী জেলা সমুহের মাঝখানে একটি বীরগঞ্জ সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যাল। অনেক দুর-দুরান্তের শিক্ষার্থীদের আবাশিক ছাত্রী নিবাসের সমস্যা বড় সমস্যা হয়ে দেখা দিয়েছে। ছাত্রী অভিভাবকেরা জরুরী ভিত্তিতে ছাত্রী নিবাস নির্মানের জোর দাবী জানান।

শিক্ষার পাশপাশি শরীর র্চচা ও জ্ঞান র্চচার খুবই প্রয়োজন কিন্ত খেলাধুলার জন্য কোন বাজেট-বরাদ্দ নেই, নেই ফুটবল, ভলিবল, ক্রিকেট সামুগ্রী, হ্যান্ডবল, ব্যাড মিন্টন খেলায় বালিকারা এগোতে পারছে না। সেই সাথে নেই লাইব্রেরী পর্যাপ্ত সংখ্যক বই-পুস্তক। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা জরুরী ভাবে শিক্ষক সংকট দুর করে প্রতিটি শ্রেণীতে শাখা খোলার জন্য জোর দাবী জানিয়েছেন।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email