রবিবার ২১ এপ্রিল ২০২৪ ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বুড়িমারী স্থলবন্দর দিয়ে ১০ মাস পর দেশে ফিরল তিন কিশোর

রবিউল হাসান

লালমনিরহাট প্রতিনিধি:

লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থলবন্দর জিরোপয়েন্ট দিয়ে ভারতের জলপাইগুড়ি কিশোর সংশোধনাগারে ১০ মাস আটক থাকার পর মঙ্গলবার দুপুরে তিন বাংলাদেশি কিশোরকে ফেরত দিয়েছে ভারতীয় কুচবিহার জেলার চ্যাংরাবান্ধা ইমিগ্রেশন পুলিশ।

বুড়িমারী অভিবাসন পুলিশ ও বিজিবি সূত্রে জানায়, নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার ঠাকুরগঞ্জ গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে রাসেল ইসলাম (১৫), একই গ্রামের দেবু ইসলামের ছেলে রুবেল ইসলাম (১৪) ও সুবাস চন্দ্র দাসের ছেলে শ্যামল চন্দ্র দাস (১৫)।

ভারতের জলপাইগুড়ি জেলা কিশোর সংশোধনাগারে প্রায় ১০ মাস আটক থাকার পর ভারতের চ্যাংরাবান্ধা ইমিগ্রেশন পুলিশ কর্মকর্তা বাধন চন্দ্র রায় মঙ্গলবার দুপুরের বুড়িমারী স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (এসআই) আনোয়ারুল ইসলামের কাছে তাদেরকে হস্তান্তর করেন।

এ সময় কিশোর শ্যামল চন্দ্র দাস বলেন, ২০১৪ সালের প্রথম দিকে একই এলাকার সীমান্ত দিয়ে ভারতের হলদিবাড়ি গ্রামে বেড়াতে গেলে বিনা পাসপোর্টে প্রবেশের দায়ে বিএসএফ আমাদেরকে আটক করে ভারতীয় পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছিল। পরে পুলিশ আদালতে হাজির করলে আদালত আমাদেরকে জলপাইগুড়ি জেলা কিশোর সংশোধনাগারে পাঠায়। সেখানে প্রায় ১০ মাস আটক থাকার পর দেশে ফেরত এলাম।

বুড়িমারী স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা (এসআই) আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, অবৈধভাবে ভারতে অনুপ্রবেশের দায়ে বিএসএফ তাঁদেক আটক করে ভারতীয় পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছিল।

১০ মাস কিশোর সংশোধনাগারে থাকার পর ভারতীয় চ্যাংরাবান্ধা অভিবাসন পুলিশের মাধ্যমে তাদেরকে ফেরত দেয়।

Spread the love