মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ ৩রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বোচাগঞ্জে গমের বাম্পার ফলন হাসিনেই কৃষকের মুখে

মোঃ শামসুল আলম বোচাগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : চলতি ২০১৪-১৫ রবি মৌসুমে বোচাগঞ্জ উপজেলার ৬ টি ইউনিয়নে গমের বাম্পার ফলন হলেও হাসি নেই কৃষকের মুখে। গমের বাজার মূল্য নিয়ে সংশয়ে রয়েছে তারা। বর্তমানে উপজেলার কৃষান/কৃষাণীরা গম কাটা মাড়া নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছে। দরিদ্র কৃষকেরা মহাজনি ঋণের টাকা সোধ দিতে বর্তমানে প্রতি বস্তা গম ১৭শ টাকা দরে বিক্রি করছে। যে কারণে খুব একটা লাভবান হতে পারছেনা তারা। এ বিষয়ে ৬নং রনগাও ইউনিয়নের চন্ডিপুর গ্রামের কৃষক মোঃ ইসমাইল হোসেন জানান, উপজেলা কৃষি সম্প্র্রসারণ অধিদপ্তরের পরামর্শ অনুযায়ী চলতি মৌসুমে ৩ একর জমিতে গমের আবাদ করেছি আশা করছি বিঘা প্রতি ১২ মণ ঘরে তুলতে পারব। ৩নং মুর্শিদ হাট ইউনিয়নের আখাপুর গ্রামের কৃষক মোঃ জহুরুল ইসলাম কালু জানান চলতি মৌসুমে ৪ একর জমিতে গমের আবাদ করেছি ফলন হয়েছে বেশ। গমের বাজার মূল্য ভাল হলে বেশ লাভবান হব আশা করছি। ২নং ইশানিয়া ইউনিয়নের জিনোর গ্রামের কৃষক মোঃ সিরাজুল ইসলাম জানান, ৫ একর জমিতে গম আবাদ করেছি ফলন হয়েছে আশানুরুপ। তবে তিনি গমের বাজার মূল্য নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে বলেন ১ বস্তা গম ১৭শ টাকায় বিক্রি করে কৃষকরা খুব একটা লাভবান হতে পারবেনা। কম করে হলেও প্রতি বস্তা গম ২ হাজার টাকা সরকারী ভাবে নির্ধারণ করলে কৃষকরা লাভবান হবে। উপজেলা কৃষি সম্প্র্রসারণ অধিদপ্তর জানিয়েছে, চলতি মৌসুমে এ উপজেলায় ৪ হাজার ১শ ৩৫ হেক্টর জমিতে গম আবাদের ল্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও কৃষকরা ৫ হাজার ৪শ ৮৫ হেক্টর জমিতে প্রদীপ, বিজয়, বারী-২৬, ২৭ ও ২৮ জাতের উন্নত মানের গম আবাদ করেছে। এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ শফিকুল ইসলাম জানান, রোগ-বালাই দমন, সঠিক সময়ে ইঁদুর দমনের উদ্দ্যেগ গ্রহন, যথা সময়ে সার, বীজ সরবরাহ এবং উচ্চ ফলনশীল জাতের গমের বীজ অধিক মাত্রায় সম্প্রসারনের ফলে কাংখিত ফলন অর্জিত হয়েছে। গমের বাজার মূল্যের বিষয়ে তিনি বলেন, সবেমাত্র গম তোলা শুরু হয়েছে আশা করছি ধীরে ধীরে গমের বাজার মূল্য বৃদ্ধি পাবে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email