রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বোচাগঞ্জে সচেতনতা সপ্তাহ

মোঃ শামসুল আলম, বোচাগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি॥ “হোক সচেতনতার বিস্তার, চাই এনটিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স থেকে নিস্তার” এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সভা কক্ষে বুধবার সকাল ১১টায় বিশ^ এন্টিমাইক্রোবিয়াল সচেতনতা সপ্তাহ ২০২১ উদযাপন উপলক্ষে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আবুল বাসার মোঃ সায়েদুজ্জামান এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভা করা হয়েছে। সভায় বক্তব্য রাখেন আর এমও ডাঃ মোঃ আসাদুজ্জামান, এমওডিসি ডাঃ জীবন কুমার শাহা, ডাঃ ইমরুর কায়েস, ডাঃ মাহামুদুল হাসান, উপজেলা ভ্যাটেনারী সার্জন ডাঃ সোয়াইবা আক্তার, উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার ধননঞ্জয় রায়, বোচাগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদ মোঃ শামসুল আলম প্রমুখ। উল্লেখ্য যে, জীবন রক্ষাকারী ঔষধ হিসেবে এন্টিবায়োটিকের বিকল্প নেই। ব্যকটেরিয়া দিয়ে যে ইনফেকসন হয় তার প্রতিকারে এন্টিবায়োটিক প্রয়োজন। কিন্তু অপ্রয়োজনে এবং এন্টিবায়োটিকের ডোজ সম্পুর্ণ না করে তা ব্যবহার করলে এন্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স জীবানু তৈরী করে। যার কারণে পরবর্তিতে এন্টিবায়োটিক বেশির ভাগ ক্ষেত্রে কাজ করে না এবং সংক্রমন নিরাময়ও হয়না। যত বেশি এনটিবায়োটিক ব্যবহার হয় তত বেশি রেজিস্ট্যান্স বৃদ্ধি পায়। সুতরাং অপ্রয়োজনে এনটিবায়োটিক ব্যবহার এন্টিবায়োটিকরোধী জীবানু তৈরীতে সাহায্য করে। সেরকম একটি পরিস্থিতিই হলো রেজিস্ট্যান্স। এন্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স রোগ জীবানুর একটি ভয়ংকর বৈশিস্ট্য। এন্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স এর কারণে সারা বিশে^ প্রতিবছর ৭লক্ষ মানুষ মারা যাচ্ছে। এ পরিস্থিতি চলতে থাকলে ২০৫০ সালে প্রতি বছর ১০লাখ মানুষ মৃত্যুবরণ করবে বলে আশংখা করা যাচ্ছে। তাই রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী এন্টিবায়োটিকের কোর্স সম্পুর্ণ করার মাধ্যমে রেজিস্ট্যান্স কমানো সম্ভব। এজন্য আমাদের সকলকে এন্টিবায়োটিক ব্যবহারে সচেতন হতে হবে।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email