শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ ১৩ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ব্র্যাক সীড প্রকল্পে কাজ করে বোচাগঞ্জের নারী শ্রমিকরা বৈষম্যের শিকার

দিনাজপুর প্রতিনিধি : বোচাগঞ্জে একজন নারী শ্রমিকের দৈনিক হাজিরা একশত দশ টাকা পাশাপাশি একই কাজ করে পুরুষ শ্রমিকরা পাচ্ছে একশত ত্রিশ টাকা। এই চিত্র বোচাগঞ্জের জালগাঁও গ্রামে ব্র্যাক অফিসের ব্র্যাক সীড প্রকল্পের আলু ক্ষেতে কর্মরত মহিলা শ্রমিকদের বেলায়। বোচাগঞ্জ ব্র্যাক সীড প্রকল্পের অধীনে জালগাঁও গ্রামে প্রায় ৩০ একর জমিতে উন্নত জাতের ডায়মন্ড আলু ক্ষেতে ঐ এলাকার প্রায় ৫০ জন শ্রমজীবি পুরুষ- মহিলা এক সাথে একই কাজ  করে দৈনিক হাজিরা বাবদ পুরুষরা একশত ত্রিশ টাকা পেলেও মহিলা শ্রমিকরা পাচ্ছেন একশত দশ টাকা। উক্ত কাজের কর্মরত মহিলা শ্রমিক পূর্নিমা ও জ্যোৎসা বালা সহ অনেকেই সকাল ৮টা থেকে বিকাল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত ৮ ঘন্টা শ্রম দিয়ে তারা পুরুষ শ্রমিকের চেয়ে ২০ টাকা কম পাওয়ায় হতাশা প্রকাশ করেন। এদিকে সাধারন কৃষকের ক্ষেতে একজন নারী ও পুরুষ শ্রমিকের দৈনিক হাজিরা দুইশত টাকা হলেও বে-সরকারী সংস্থা ব্র্যাক-এ কাজ করে এত কম টাকায় হাজিরা দেওয়ায় তারা ঠিকমত দুবেলা খেতে পাচ্ছে না। যেখানে বর্তমান বাজার মূল্য সব জিনিসের দাম বেড়ে দ্বিগুন হয়েছে সেখানে অল্প টাকার হাজিরায় সন্তুষ্ট নন তারা। তারপরও পেটের তাগিদে কাজ করে যাচেছ। এব্যাপারে বোচাগঞ্জ ব্র্যাক সীড প্রকল্পের ম্যানাজার মোঃ নজরুল ইসলামে সাথে মুঠোফনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তাদের আলু ক্ষেতে কাজের ধরন হালকা হওয়ায় দিন হাজিরা কম। অথচ বে-সরকারী সংস্থা ব্র্যাক জেন্ডার বৈষম্যে ও নারী পুরুষ সম অধিকার বাস্তবায়নে কাজ করে গেলেও খোদ তারাই নারীদের দিন হাজিরা কম দিয়ে বৈষম্যের সৃষ্টি করেছেন।