সোমবার ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ২৩শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির নতুন জনবল কাঠামো বাতিলের বিক্ষোভ মিছিল

DINAJPUR COAL-2দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরের পার্বতীপুরস্থ বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির নতুন জনবল কাঠামো বাতিল করে পূর্বের জনবল কাঠামো ২হাজার ৬শ’ ৭৪ জনের পদ বহাল রাখার দাবীতে গতকাল রোববার সকাল সাড়ে ১১টায় বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ভিতরে শ্রমিক বিক্ষোভ মিছিল প্রদক্ষিণ করে। ৪৮ ঘন্টার মধ্যে এই নতুন জনবল কাঠামো প্রত্যহার করে পূর্বের জনবল কাঠামো বহাল করতে হবে। তা না হলে অন্দোলনের মাধ্যমে পূর্বের জনবল কাঠামো আদায় করা হবে। দুপুর ১২টায় বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি রবিউল ইসলামের নেতৃত্বে এমডি বরাবর একটি স্বারক্ষ লিপি দেয়া হয়। জানা যায়, খনিতে কর্মরত ১ হাজার ১শ’ শ্রমিকের চাকুরীচ্যূত করার জন্য খনি কর্তৃপক্ষ তালিকা তৈরী করেছে। নতুন জনবল কাঠামো বাতিল করে পূর্বের জনবল কাঠামো অনুযায়ী ২ হাজার ৬শ’ ৭৪ জনের পদ বহাল রাখার দাবী জানান শ্রমিকরা।

বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি রবিউল ইসলাম বলেন, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির বর্তমান ব্যবস্থাপনা পরিচালক খনি শ্রমিকদের পদ বিলুপ্তি করে নতুন জনবল কাঠামো তৈরী করেছে। এতে ১৯৭ জন কর্মকর্তা, ৮২ জন স্থায়ী কর্মচারী ও ৪৬০ জন অস্থায়ী কর্মচারীর পদ সৃষ্টি করেছে। তাতে দেখা যায়, এই খনিতে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মোট পদের সংখ্যা ৭৩৮ জন। অথচ এই খনিটি একটি প্রথম শ্রেনীর সংরক্ষিত এলাকা পূর্বের জনবল কাঠামো অনুযায়ী ২৩৫ জন নিরাপত্তা রক্ষী ও ১হাজার ৩৬৫ জন খনি শ্রমিকের পদ বিলুপ্ত করা হয়েছে।

বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি ওয়াজেদ আলী বলেন, ৪৮ ঘন্টার মধ্যে এই নতুন জনবল কাঠামো প্রত্যহার করে পূর্বের জনবল কাঠামো বহাল করতে হবে। তা না হলে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে পূর্বের জনবল কাঠামো আদায় করা হবে।

উলে­খ্য, গত ২০০০ সালে বড়পুকুরিয়া কোল মাইন কোম্পানি লিঃ এর প্রকল্প পরিকল্পনায় ২হাজার ৬শ’ ৭৪জন কর্মকর্তা কর্মচারীর পদ সৃষ্টি করে কোম্পানিটি যাত্রা শুরু করেছিল। এর ১৪ বছর পর চলতি সনের জানুয়ারী মাসের বোর্ড সভায় প্রকল্প পরিকল্পনার জনবল কাঠামো পরিবর্তন করে ৭৩৮ জনের পদ সৃষ্টি করা হয়। ইতি মধ্যে ৫৪ শ্রমিক কে ছাটাই করা হয়েছে।