রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের কারনে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামবাসীদের মানব বন্ধন

রাইসুল ইসলাম, পার্বতীপুর (দিনাজপুর)
দিনাজপুরের পার্বতীপুরে বড়পুকুরিয়া কয়লাভিত্তিক ২৫০ মেঃ ওয়াট তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের লাগোয়া গ্রাম পূর্ব দুধিপুরের নারী পুরুষ শিশুরা ‘জীবন বাঁচার জন্য সংগ্রাম কমিটি’র ব্যানারে ৬ দফা দাবিতে মানব বন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে।
আজ বুধবার সকাল ১০ টায় অনুষ্ঠিত এক ঘন্টারও বেশি সময় ধরে চলা মানববন্ধনে সংগঠনের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, সদস্য সচিব মোঃ রবিউল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
বক্তারা বলেন, বড় পুকুরিয়া কয়লা ভিত্তিক ২৫০ মেঃওয়াট তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের কারনে পূর্ব দুধিপুর গ্রামের মানুষ নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন এবং এখনও হচ্ছেন। তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য জমি অধিগ্রহনকালে তাদের ক্ষতিপূরন দেওয়া হয়েছিলো একর প্রতি মাত্র ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পাশের বড়পুুকুরিয়া কয়লা খনির জমি অধিগ্রহন বাবদ ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়েছে একর প্রতি ২০ লাখ টাকা করে। তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের আগে এখানকার গ্রামের সন্তানদের স্থায়ী চাকুরী দেওয়ার কথা প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিলো। এছাড়াও সবরকম সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেওয়া হয়েছিলো।
বর্তমানে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কা2রনে গ্রামে পানির জন্য হাহাকার দেখা দিয়েছে। কয়লার ধোঁয়া কালি ছাই পড়ে প্রতিনিয়ত পরিবেশ বিঘ্নিত হচ্ছে। জমিতে ফসল কমে গেছে এবং বহু মানুষের চোখের সমস্যা দেখা দিয়েছে বলে বক্তারা উল্লেখ করেন।
এসময় সংগঠনের পক্ষ থেকে ৬ দফা দাবি পেশ করা হয়। দাবিগুলো হলো, পূর্ব দুধিপুর গ্রামের প্রতিটি মানুষকে উপযুক্ত আর্থিক সহায়তা দিতে হবে, বিনামূলে পানি সরবরাহ করতে হবে, বেকার সন্তানদের স্থায়ী চাকুরী দিতে হবে, তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে গ্রামে সরাসরী বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে হবে, বিদ্যুৎ কেন্দ্র লাগোয়া এলাকায় একটি হাই স্কুল, একটি কলেজ ও মসজিদ নির্মান করতে হবে।
3
এসব দাবি জানিয়ে গত ২২ অক্টোবর বড় পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান প্রকৌশলীর কাছে একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে বলে সংগঠনের সদস্য সচিব মোঃ রবিউল ইসলাম উল্লেখ করেন।
Spread the love