শনিবার ২৫ জুন ২০২২ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভারতীয় রকেটে ৫ বিদেশি স্যাটেলাইটের মহাকাশ পাড়ি

Indiaভারতের রকেটে চেপে আজ সোমবার সকাল ৯.৫২ মিনিটে মহাকাশ পাড়ি দিল ৫টি বিদেশি স্যাটেলাইট। উপগ্রহ উৎক্ষেপণ সফল হতেই টেনশনে দমবন্ধ করে থাকা ইসরোর বিজ্ঞানীদের মুখে তখন চওড়া হাসি। মহাকাশ বিজ্ঞানে পশ্চিমি দুনিয়ার একচেটিয়া দখলদারিকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে নজির গড়ল ভারত। আজ অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটার সতীশ ধাওয়ান মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র থেকে ৫টি বিদেশি উপগ্রহ উৎক্ষেপণ করে ইসরো। পিএসএলভি-সি-২৩-রকেটের মাধ্যমে এ উপগ্রহ উৎক্ষেপণ ভারতের মহাকাশ বিজ্ঞানে এক অভূতপূর্ব সাফল্য। এ ঐতিহাসিক মুহূর্তের সাক্ষী রইলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।
এর আগে ১৯টি দেশের ৩৫টি উপগ্রহ সফলভাবে উৎক্ষেপণ করেছে ভারতের জাতীয় মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র ইসরো। ইসরোর বিজ্ঞানীদের উদ্দেশে নরেন্দ্র মোদি বলেন, কম খরচে আধুনিক প্রযুক্তিতে কাজ করে দৃষ্টান্ত তৈরি করেছে ইসরো। অগ্রগতি হয়েছে ভারতের মহাকাশ গবেষণার। সার্ক উপগ্রহ উৎক্ষেপণেও ভারতকে চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। প্রতিবেশী দেশগুলিকে সার্ক উপগ্রহ উপহার দেবে ভারত। মোদির সঙ্গে শ্রীহরিকোটায় উপস্থিত ছিলেন বিজেপি নেতা বেঙ্কাইয়া নাইডু ও অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু, ইসরোর প্রাক্তন সভাপতি মাধবন নায়ারও। মোদিকে এ উৎক্ষেপণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানান ইসরোর বর্তমান সভাপতি কে রাধাকৃষ্ণন। এদিন নির্ধারিত সময়ের ৩ মিনিট পরে উপগ্রহ উৎক্ষেপণ হয়। এ প্রথম উৎক্ষেপণের ধারাবিবরণী দিলেন কোনও মহিলা। ললিতাম্বিকা নামে ওই মহিলা বিক্রম সারাভাই মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রের ইঞ্জিনিয়ার। নিরাপত্তা কঠোর রাখতে সতীশ ধাওয়ান মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রে এদিন প্রায় চার হাজার পুলিশ মোতায়েন ছিল।
ইসরোর বিজ্ঞানীদের অভিনন্দন জানিয়ে মোদি বলেন, দেশবাসীর গর্বের মুহূর্ত। এ উৎক্ষেপণের সাক্ষী হতে পেরে আমি গর্বিত। ফ্রান্স, জার্মানি, কানাডা ও সিঙ্গাপুর থেকে আনা হয়েছিল ৫টি উপগ্রহ। মহাকাশ থেকে পৃথিবী পর্যবেক্ষণকারী ফ্রান্সের উপগ্রহ স্পট-৭ (৭১৪ কেজি), জার্মানির আইস্যাট (১৪ কেজি), কানাডার এনএলএস ৭.১ ও এনএলএস ৭.২ (১৫ কেজি) এবং সিঙ্গাপুরের ভেলোক্স-১ (৭ কেজি) উপগ্রহগুলি উৎক্ষেপণ করে পিএসএলভি-সি২৩-রকেট। মহাকাশে পৌঁছে এনএলএস ৭.১ ও এনএলএস ৭.২ উপগ্রহটির কাজ হবে পুরো প্রক্রিয়ার দিক ও গতি নিয়ন্ত্রণ। ভেলোক্স-১-এর কাজ মহাকাশ থেকে তোলা ছবিকে প্রদর্শন করা এবং পুরো প্রক্রিয়ার নিয়ন্ত্রণ।
এর আগে আমেরিকা, ফ্রান্সের মতো দেশের কাছ থেকে মহাকাশ সংক্রান্ত যাবতীয় ছবি কিনতে হত ভারতকে। আর আজ ভারত বিদেশের উপগ্রহ সফলভাবে মহাকাশে পাঠাচেছ। পশ্চিমের দেশগুলো এখন উপমহাদেশের কাছ থেকে মহাকাশের ছবি কিনছে। ভারতীয় মহাকাশ বিজ্ঞানীদের দাবি, এখন আর অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখা নয় মহাকাশে আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যেই এগিয়ে চলেছে ভারত। পিএসএলভি-সি২৩-রকেট উৎক্ষেপণের কাজ শুরু হয়েছিল প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের আমলে। এ নিয়ে পিএসএলভি-র রকেট ২৭বার সফলভাবে উপগ্রহ উত্ক্ষেপণ করল। এবার ২৩০ টন ওজনের এই রকেট তৈরির খরচ হয়েছে প্রায় ১০০ কোটি টাকা।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email