সোমবার ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ২৩শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভারতে শিখ চরমপন্থীর মৃত্যুদন্ড রদ

india shikhইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক: দুই দশক আগে দিল্লিতে এক গাড়িবোমা হামলায় অভিযুক্ত এক শিখ চরমপন্থীর মৃত্যুদন্ড মওকুফ করে তাকে আজীবন কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছে ভারতের সর্বোচ্চ আদালত।  আসামি দেবিন্দরপাল সিং ভুলারের স্ত্রীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার আদালত এই রুল জারি করে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। ভুলারের স্ত্রী তার স্বামীর মৃতুদন্ড বন্ধ করার আবেদন জানিয়ে কারণ হিসেবে বলেন, মৃত্যুদন্ডের অপেক্ষায় থাকতে থাকতে তার স্বামী মানসিকভাবে অসুস্থ  হয়ে পড়েছেন এবং তার ক্ষমা ভিক্ষার আবেদনের নিষ্পত্তিতে দেরি করা হয়েছে। দিল্লিতে ওই গাড়িবোমা হামলায় নয়জন নিহত হয়েছিলেন। শিখ বিচ্ছিন্নতাবাদি সশস্ত্র আন্দোলনের বিরোধিতাকারী কংগ্রেস নেতা মনিন্দরজিৎ সিং বিত্তাকে লক্ষ করে হামলাটি চালানো হয়েছিল, কিন্তু বিত্তা বেঁচে যান। ওই হামলার মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে অভিযুক্ত হন ভুলার। ২০০১ সালে তাকে মৃত্যুদন্ড দেয়া হয়।

 

২০০৩ সালে ভুলার প্রেসিডেন্টের কাছে ক্ষমা ভিক্ষার আবেদন করেন। আট বছর পর ভারতের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট প্রতিভা পাতিল আবেদন খারিজ করেন। গত সপ্তাহে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার সর্বোচ্চ আদালতকে জানায়, ৪৯ বছর বয়সী ভুলারের মৃতুদন্ড কার্যকর করতে তাদের আর কোনো ‘‘সমস্যা নেই’’। জানুয়ারিতে কার্যকর করতে দেরি করায় ১৫ জনের মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা বন্ধ করে তাদের দন্ড হ্রাস করে দেয় আদালত। ওই সময় দেয়া রুলে আদালত বলেছিল, সিজোফ্রেনিয়ার মতো মানসিক অসুস্থ তা থাকলে মৃত্যুদন্ড হ্রাস করতে হবে। ভুলারের বিষয়েও ওইসব বিবেচনা প্রয়োগযোগ্য বলে জানিয়েছে আদালত।