বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ ১৬ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভুয়া সনদে নাম পাল্টিয়ে গ্রামীণ ব্যাংকে চাকরি করছেন সাঘাটার রাহেনুল কবীর

জিল্লুর রহমান মন্ডল পলাশ, গাইবান্ধা

গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার মুক্তিনগর ইউনিয়নের ভরতখালী গ্রামের রাহেনুল কবীর অন্যের সনদ ব্যবহার করে নিজের নাম পাল্টিয়ে ৭ বছর যাবত গ্রামীণ ব্যাংকে চাকুরী করছেন অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

অভিযোগে জানা গেছে, ফুলছড়ি উপজেলার গজারিয়া গ্রামের শুকুর আলী তালুকদারের ছেলে চঞ্চল মিয়া ফুলছড়ি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান বিভাগে এসএসসি (রেজিঃ নম্বর ৪১৩৬১৫ শিক্ষা বর্ষ ১৯৯৫-৯৬) এবং ফুলছড়ি ডিগ্রী কলেজ থেকে ১৯৯৯ সালে এইচএসসি পাশ করেন (যার রেজিঃ নম্বর ৮৭০৭২৩ শিক্ষাবর্ষ ১৯৯৭-৯৮)। ওই চঞ্চল মিয়ার সনদপত্র সমুহ জাল করে নিজেকে চঞ্চল মিয়া পরিচয় দিয়ে রাহেনুল কবীর গ্রামীণ ব্যাংকে চাকুরীতে যোগদান করেন।

 

উল্লেখ্য, মুক্তিনগর ইউনিয়ন পরিষদে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধকের কার্যালয়ের ৪ নম্বর  জন্ম সনদ নিবন্ধন বহিতে দেখা গেছে, রাহেনুল কবীর পিতা রইচ উদ্দিন, মা রশিদা বেগম, তার নিবন্ধন নম্বর ০১৬৮৪৮ নিবন্ধনের তারিখ ৩১ জানুয়ারী ২০০৬।  জন্ম তারিখ ১৯৭৯ সালের ১০ জুলাই। তার ব্যক্তিগত পরিচিতি নম্বর ১৯৭৯৩২১৮৮৯৫০১৬৮৪৮। তার প্রকৃত নাম রাহেনুল কবীর হলেও তিনি এখন ভুয়া চঞ্চল মিয়া নামে পরিচিত। ওই নামেই এবং ভুয়া সনদপত্রে রাহেনুল কবির গ্রামীণ ব্যাংকের নোয়াখালী জোনের চৌমোহনী বেগমগঞ্জ এরিয়ার কাদিরপুর শাখায় কেন্দ্র ব্যবস্থাপক হিসেবে কর্মরত আছেন।

 

এ প্রসঙ্গে কাদিরপুর শাখা ম্যানেজারের ০১৭১১৭১৫২৯০ নম্বরে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন রাহেনুল কবীর নয়, চঞ্চল মিয়া নামের গাইবান্ধার একজন কেন্দ্র ব্যবস্থাপক হিসেবে এই শাখায় কর্মরত আছেন। সংশ্লি­ষ্ট ইউপি সদস্য মাহবুর রহমান জানান, রাহেনুল কবীর তাহার বন্ধু চঞ্চল মিয়ার সাটিফিকেট দিয়ে গ্রামীণ ব্যাংকে চাকুরী করছে বলে তিনি শুনেছেন। এ ব্যাপারে রাহেনুল কবীরের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের সত্যতা অস্বীকার করেন।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email