বুধবার ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ১৮ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

যৌতুকের দাবীতে অমানুষিক নির্যাতনে গৃহবধূর আত্নহত্যা

গফরগাঁও, ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে যৌতুকের দাবীতে এক গৃহবধূকে অমানুষিক নির্যাতন করায় অবশেষে নির্যাতন সইতে না পেয়ে গৃহবধূ আত্নহত্যা করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে, গত রোববার রাতে উপজেলার মশাখালী ইউনিয়নের মশাখালী গ্রামে।

জানা যায়, উপজেলার মশাখালী গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফের ছেলে মুনজুর মিয়ার সাথে দুই বছর আগে ফেনী জেলার সদর থানার কাজকাছিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ কাছিমপুর গ্রামের আব্দুল করিমের মেয়ে সাফিয়া খাতুনের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় মুনজুর মিয়া ফেনীর একটি কোম্পানীতে নিরাপত্তার কর্মীর চাকুরী করতো। পরে মুনজুর মিয়া চাকুরী ছেড়ে দিয়ে স্ত্রী সাফিয়া খাতুনকে নিয়ে তার গ্রামের বাড়ি মশাখালীতে চলে আসে। বাড়ি আসার পর থেকেই মুনজুর ও তার পরিবারের লোকজন যৌতুকের জন্য প্রায়ই সাফিয়াকে গালিগালাজসহ শারীরিকভাবে নির্যাতন করতো।

ঘটনাদিন গত রোববার সন্ধ্যায় আবারও স্ত্রী সাফিয়াকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও বাবার বাড়ি থেকে মোটা অংকের টাকা এনে দিতে চাপ প্রয়োগ করে। কিন্তু দরিদ্র বাবার পক্ষে টাকা দেওয়া সম্ভব নয় জেনে রাতেই সাফিয়া ঘরের দরজা বন্ধ করে আড়ার সঙ্গে গলায় দড়ি বেঁধে আত্নহত্যা করে। প্রতিবেশীরা টের পেরে নিহতের বাবার বাড়ি ও পাগলা থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা মর্গে পাঠাঁয়। নিহত সাফিয়ার পরিবারের অভিযোগ , সাফিয়া তার স্বামী ও পরিবারের লোকজনের নির্যাতন সইতে না পেয়ে আত্নহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের বাবা আব্দুল করিম বাদী হয়ে পাগলা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনার পরপরই নিহতের স্বামী মুনজুর মিয়া সহ পরিবারের লোকজন পলাতক। এ ব্যাপারে পাগলা থানার ওসি বদরুল আলম খান বলেন, আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।