বুধবার ১৭ অগাস্ট ২০২২ ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রবি শষ্য ফসল আবাদ করে বেশি মুনাফ অর্জন করা যায়

রানীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও)প্রতিনিধি : উত্তরাঞ্চলের ঠাকুরগাঁও জেলাকে ধান-গম আবাদের শহর বলা হলেও এবার অধিক ফসল ঘরে তুলে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হওয়ার লক্ষে কৃষি বিভাগ মাঠ দিবস উঠান বৈঠকসহ কৃষকদের পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছে।
কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, রানীশংকৈল উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় উপসহকারি কর্মকর্তারা কৃষকদের ধান ও গম আবাদের পাশাপাশি রবি শষ্য সবজি, শিম, লাউ, মিষ্টি কুমড়া, লালশাক, মূলা, পেঁপে ও কলা চাষে সচেতনতা মূলক বৈঠক করে যাচ্ছেন। নন্দুয়ার ইউনিয়নে গিয়ে দেখা যায়, কৃষি ক্ষেত্রে ব্যাপক সাফল্য চোখে পড়ার মতো চিত্র সেখানে কৃষি উপসহকারি কর্মকর্তা সাদেকুল ইসলাম সন্ধারই গ্রামকে কৃষি প্রযুক্তি গ্রাম হিসাবে গড়ে তুলেছেন। কোন কৃষকের বাড়িতে সামান্য জায়গা পড়ে থাকলে সেখানে সবজি চাষ, শিম, লাউ, মিষ্টি কুমড়া, লালশাক, মূলা, পেঁপে, টমেটো ও কলা চাষে পরামর্শ প্রদান করছেন। এছাড়াও রাস্তার ধারে ২০০টি নিম ও গাছ ২০০ তালের বীজ রোপণ করেছেন।
এ প্রসঙ্গে বাঁশবাড়ি গ্রামের আ. রশিদ ও সন্ধারই গ্রামের হিরেন চন্দ্র, রফিকুর ইসলাম বলেন, ধান গমের পাশাপাশি কাট ফসল আবাদ করছি, তাতে আমাদের খাওয়ার হয়ে বাজারেও বিক্রি করা যাচ্ছে। এদিকে সন্ধারই গ্রামের মতি বলেন, আগে আমরা ময়লা আবর্জনা ও গোবর খোলা যায়গায় স্তুপ করে রাখতাম, কিন্তু কৃষি অফিসার সাদেকুলের পরামশে গর্ত করে উপরে টিনের অথবা পলিথিনের চালা দিয়ে রেখে জৈব্য সারের অনেক গুনাগুন পাওয়া যাচ্ছে।
এ ব্যাপারে উপ সহকারি কর্মকর্তা সাদেকুল ইসলাম এ প্রতিনিধিকে বলেন, কৃষি ক্ষেত্রে অন্যান্য ফসলের পাশাপশি কাট ফসল আবাদ করে অধিক মুনাফা পাওয়া যায় তাই ধান ও গম চাষের পাশাপাশি কাট ফসলের প্রযুক্তি বেশ জন প্রিয় হয়ে উঠেছে। এ ব্যাপারে কৃষি কর্মকর্তা মাজেদুল ইসলামের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, মূলত ৩টি মৌসুমে আবাদ করা হয়। রবি মৌসুম ১৬ অক্টোবর হতে ১৫ মার্চ, খরিফ-১, ১৬ মার্চ হতে ১৫ জুলাই, খরিফ-২, ১৬ জুলাই হতে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত। গত মৌসুমে ১২৫০ হেক্টর জমিতে রবি শষ্য আবাদের লক্ষ মাত্রা নির্ধারণ করা হয়ে ছিল এবার তুলনা মূলকভাবে বেড়েছে।
Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email