শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ ১৩ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রাবি শিক্ষার্থীদের ওপর গুলি: প্রশাসন ভবন ঘেরাও

292801_506041776073355_842089242_nসাব্বির হোসেন অনিক (রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক) ঃ
ছাত্রী নিহত হওয়ার ঘটনায় বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের গুলির প্রতিবাদে প্রশাসন
ভবন ঘেরাও করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শনিবার দুপুর ১২
টা থেকে প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা প্রশাসন ভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন
করে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।
পরে উপাচার্য এসে শিক্ষার্থীদের তিন দফা দাবী মেনে নেয়ার আশ্বাস দিলে
শিক্ষার্থীরা অবরোধ প্রত্যাহার করে।
শুক্রবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে রিকসার লোহার এঙ্গেল
ভেঙ্গে গেলে অটোরিকসার চাপায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের
দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী সাবরিনা জাহান (সনি) নিহত হয়। ওই ঘটনায় দুপুরে
বিক্ষুব্ধ বিনোদপুর ও কাজলা ফটকে শিক্ষার্থীরা মিছিল বের করলে পুলিশ
অতিকিৎ গুলি চালায়। সেখানে আহত হয় ৭ শিক্ষার্থী।
শনিবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে দুই শতাধিক শিক্ষার্থী মমতাজ উদ্দিন কলা
ভবনের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। ক্যাম্পাস পদক্ষিণ শেষে
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবন ঘেরাও করে বিক্ষোভ সমাবেশ করে তারা।
তিন দফা দাবীতে এই বিক্ষোভ কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন, আলমগীর সুজন, আহসান
হাবীব রকি, শান্তা সূত্রধর, আয়াতুল্লাহ খোমনী, ফারুক ইমন, আরিফ পারভেজ,
কাহালুর ছাত্র সংগঠনের প্রতিনিধি সৈকত আহম্মেদ প্রমূখ।
শিক্ষার্থীদের তিন দফা দাবীগুলো ছিল, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক,
বিনোদপুর ও কাজলা ফটকে গতিরোধক ও ট্রাফিক পুলিশ মোতায়েন, সাবরিনার
পরিবারকে অর্থ সহায়তা প্রদান ও সাধারন শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি গুলিতে
জড়িত পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ।
সমাবেশে শিক্ষার্থীরা বলেন, শুক্রবার পুলিশ বিনা উষ্কানিতে সাধারন
ছাত্রদের ওপর গুলি চালিয়েছে। গুলিতে আহত হয়েছেন সাবরিনার সহপাঠিরা।
এইভাবে সাধারন শিক্ষার্থীদের ওপর গুলি চালানোর সংস্কৃতি বন্ধ না হলে
ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থীরা জোড়ালো আন্দোলন গড়ে তুলবে। আমরা এই ঘটনার তীর্ব
প্রতিবাদ জানাই।
প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা অবরুদ্ধ থাকার পর শিক্ষার্থীদের দাবীর প্রেক্ষিতে
বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মিজানউদ্দিন এসে শিক্ষার্থীদের দাবী
মেনে নেয়ার আশ্বাস দেন।
উপাচার্য বলেন, সাবরিনার মৃত্যুতে আমরা শোকাহত। আমরা তিন দফা দাবী মেনে
নিলাম। আগামি এক সপ্তাহের মধ্যে এই দাবীগুলো বাস্তবায়ন করা হবে।
এদিকে শিক্ষার্থীদের ওপর গুলি চালানো যৌক্তিক ছিল বলে দাবী করেছেন ডেপুটি
পুলিশ কমিশনার (পূর্ব) প্রলয় সিম।
তিনি বলেন, আমরা শিক্ষার্থীদের শান্ত করার চেষ্টা করছিলাম। কিন্ত তারা
রাস্তায় মারমুখো হওয়ায় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করতে গুলি ছুঁড়েছে।