বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাষ্ট্রীয় বাহিনীগুলো ভয়াল ঘাতকের ভূমিকায় অবতীর্ণ

যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, প্রজাতন্ত্রের সকল সম্মানিত কর্মকর্তা-কর্মচারী ভাই-বোনদেরকে আহ্বান জানাই, আপনারা জনগণ এবং রাষ্ট্রের সেবক হিসেবে নিরপেক্ষ থেকে দায়িত্ব পালন করুন। কোনো ব্যক্তি বা দলের অবৈধ ইচ্ছা বা আদেশ পালনের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহৃত হবেন না।’

মঙ্গলবার দুপুরে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে দলের যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদ এ কথা বলেছেন।

সালাহ উদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় বাহিনীগুলো ভয়াল ঘাতকের ভূমিকায় অবতীর্ণ। অবৈধ সরকার দুঃশাসন টিকিয়ে রাখতে সমগ্র দেশকে মৃত্যুপুরীতে পরিণত করেছে। সরকারি গুপ্তঘাতক পেটোয়া পুলিশ-র‌্যাব বাহিনী প্রতিনিয়তই বিরোধী রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের বসতবাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গুলি করে হত্যা করার পর রাস্তাঘাটে, মাঠে-ময়দানে, খালে-বিলে, ক্ষেতে-খামারে লাশ ফেলে রেখে গ্রেপ্তারের দায়িত্ব অস্বীকার করছে।’

তিনি বলেন, ‘ঢাকার মিরপুর ও ঝিনাইদহে ৬ জনের অসংখ্য গুলিবিদ্ধ লাশের ছবি পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার পরও পুলিশ বলছে, তারা গণপিটুনিতে মারা গেছে। নিহতদের পরিবারের বক্তব্য অনুযায়ী কয়েকদিন আগেই পুলিশ তাদের বিনা কারণে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায়। পুলিশ হেফাজতে থাকা অবস্থায় পরিবারের সঙ্গে তাদের টেলিফোনে কথা হয় এবং তাদের কাছে পুলিশ টাকাও দাবি করে।

মিরপুর ১০নং ওয়ার্ড শ্রমিক দলের আহ্বায়ক আবদুল ওয়াদুদকে গ্রেপ্তারের পর বন্দুকযুদ্ধের সাজানো নাটকে তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বিএনপি কর্মী দেলোয়ার হোসেন দুলাল ও গোলাম আজম পলাশকে ডিবি পুলিশ কয়েকদিন আগেই গ্রেপ্তার করে গতকাল ঠাণ্ডা মাথায় গুলি করে হত্যার পর লাশ উপজেলার ডেফোলবাড়িয়া মাঠে ফেলে রেখে যায় এবং গ্রেপ্তারের কথা অস্বীকার করে।

মিরপুরের নিহত অপর তিনজন জুয়েল, সুমন ও রবিনের গায়ে ৫৪টি গুলির চিহ্ন পাওয়ার পরও পুলিশের দাবি, গণপিটুনিতে তাদের মৃত্যু হয়েছে। আমরা বরাবরের মতো এই সকল জঘন্য গণহত্যার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। সময়ের পট পরিবর্তন হলে এইসব গণহত্যায় দায়ী ব্যক্তিদেরকে বিচারের জন্য উপযুক্ত আদালতের আওতায় আনা হবে।’

সালাহ উদ্দিন বলেন, ‘এই জনপদের মানবতার শত্রু, গণহত্যাকারী, গণতন্ত্রের আততায়ী অবৈধ আওয়ামী সরকারকে স্মরণ করিয়ে দিতে চাই, জনগণের ব্যালটের অধিকার বুলেটের মাধ্যমে কেড়ে নিয়ে ক্ষমতার উত্তাপে অন্ধ হলেও প্রলয় বন্ধ হবে না।’

তিনি আরো বলেন, ‘চলমান অবরোধ-হরতাল কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে পুলিশের তথাকথিত বন্দুকযুদ্ধে এবং সরকারদলীয় সন্ত্রাসীদের হাতে বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের যেসব নেতাকর্মী নিহত হয়েছেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে তাদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত এবং আহতদের সুস্থতা কামনা করছি। নিহতদের পরিবার-পরিজনদের প্রতি জানাচ্ছি গভীর সমবেদনা ও সহমর্মিতা।

আন্দোলনে বিএনপিসহ ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত সকল  মামলা প্রত্যাহার ও গ্রেপ্তারকৃতদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন সালাহ উদ্দিন।

Spread the love