মঙ্গলবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৩ ১৭ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রুশ ক্ষেপণাস্ত্র ঘাঁটির প্রহরায় নামবে ‘রোবট সেনা’!

2-Robot-armyরাশিয়ার পাঁচটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ঘাঁটির প্রহরায় নামানো হবে ‘রোবট সেনা’। রুশ কৌশলগত ক্ষেপণাস্ত্র বাহিনীর প্রধান দিমিত্রি অ্যান্দ্রিয়েভ এ ঘোষণা দিয়েছেন। মানুষের সাহায্য ছাড়াই এ সব রোবট লক্ষ্যবস্তু নির্ধারণ এবং নিপুণভাবে ধ্বংস করতে পারবে। এর ফলে রোবট সংক্রান্ত অস্ত্র প্রতিযোগিতায়ি আমেরিকার চেয়ে রাশিয়া এগিয়ে গেছে বলে ধারণা করছে নিউ সায়েন্টিস্ট সাময়িকী। এ জাতীয় রোবট সেনার নাম রাখা হয়েছে ‘মোবাইল (বা চলমান) রোবটিক কমপে­ক্স’। মস্কো থেকে ১, ২০০ কিলোমিটার পূর্বে অবস্থিত ইজেভস্ক রেডিও প­্যান্ট তৈরি করেছে এ সব রোবট। এক একটি রোবট সেনার ওজন ৯০০ কিলোগ্রাম। এতে বসানো থাকবে কয়েকটি ক্যামেরা, লেজার রেঞ্জ ফাইন্ডার এবং কয়েকটি রাডার সেন্সর। এ ছাড়া, ১২.৭ মিলিমিটার ভারি মেশিনগান বসানো থাকলেও এর চেয়ে হালকা অস্ত্র বসানোর সুযোগ রাখা হয়েছে এতে। পেট্রোল চালিত ইঞ্জিনের সাহায্যে একটি রোবট সেনা ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৪৫ কিলোমিটার বেগে ছুটতে পারবে। এক নাগাড়ে এটি ১০ ঘণ্টা কাজ করতে পারবে বা এক সপ্তাহের জন্য ঘুমন্ত অবস্থায় রেখে দেয়া যাবে একটি রোবট সেনাকে। গত বছর রাশিয়ার একটি অস্ত্র মেলায় এ সব রোবট সেনা প্রদর্শন করা হয়। অ্যান্দ্রিয়েভ সে সময় বলেন, স্বয়ংক্রিয় বা আধা স্বয়ংক্রিয়ভাবে এ সব রোবট লক্ষ্যবস্তু নির্ধারণ এবং ধ্বংস করতে পারবে। আমেরিকা নিজ প্রয়োজনে দীর্ঘদিন ধরে ড্রোন বা চালকবিহীন বিমান ব্যবহার করছে। তবে এ সব বিমান নিজেরা কোনো লক্ষ্যবস্তু নির্ধারণ করতে বা অস্ত্র ব্যবহার করতে পারে না বরং এ সব ড্রোন দূর থেকে মানুষই নিয়ন্ত্রণ করে। রুশ সশস্ত্র রোবট তৈরির পরিকল্পনার পেছনে রয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শুইগো। ২০১৩ সালের জানুয়ারি মাসে তিনি ঘোষণা করেছিলেন, দেশটির সামরিক বাহিনী রোবট ব্যবহারের পরিধি বাড়াবে এবং এতে বছরে ২৪০ কোটি ডলারের সম পরিমাণ অর্থ সাশ্রয় হবে। গত জুনে কোভরোভে’র দেগতাইরায়েভ অস্ত্র কারখানায় নতুন সামরিক রোবট গবেষণাগার নির্মাণের ঘোষণা দেন রুশ উপ-প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি রোগোজিন। এ ছাড়া, জুকোভাস্কি এয়ার ফোর্স ইঞ্জিনিয়ারিং একাডেমিতে একটি সামরিক রোবট গবেষণাগার নির্মাণ করা হবে বলেও ঘোষণা করা হয়। রোগোজিন বলেন, নিজ দেশের সেনারা যাতে মারা না পড়ে সেজন্য দূর থেকে রাশিয়াকে যুদ্ধ চালাতে হবে; আর এ জন্য যুদ্ধে নামাতে হবে রোবট।