বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শ্রমিককে আটকের প্রতিবাদে দিনাজপুরে নির্মান শ্রমিকদের বিক্ষোভ মিছিল, স্মারকলিপি

Dinajpur-25-11-13------দিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুরে মিথ্যা ও সাজানো অভিযোগে আটক নির্মাণ শ্রমিক এখলাস আলীকে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে মুক্তির দাবী জানিয়েছে জেলা নির্মাণ মিস্ত্রি শ্রমিক ইউনিয়ন। অন্যথায় বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলার হুশিয়ারী দিয়েছেন। এ দাবীতে তারা গতকাল সোমবার শহরে বিক্ষোভ মিছিল শেষে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন।

জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবর দেয়া স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, গত ২২ নভেম্বর রাত আনুমানিক ১২টায় দিনাজপুর জেলা নির্মাণ মিস্ত্রি শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্য এখলাস আলীর (৬৫) শহরের রামনগর গোবরাপাড়াস্থ বাসায় ডিবি পুলিশের সদস্য রাজুর নেতৃত্বে একদল ডিবি পুলিশ প্রবেশ করে। প্রবেশের পর ডিবি পুলিশের সদস্যরা এখলাসকে বলে তুমি ফেনসিডিলের ব্যবসা, তোমার ঘরে ফেনসিডিল আছে। তাদের কথার জবাবে এখলাস ডিবি পুলিশের সদস্যদের বাসায় তল্লশী চালানোর অনুমতি দিলে ডিবি পুলিশের লোকজন তার ঘর তল্লাশী করে বাসায় কিছু না পেয়ে বাইরে বেরিয়ে আসে। এ সময় ডিবির এক সদস্য হঠাৎ বাসার বাইরের গেট থেকে একটি ব্যাগ তুলে এনে বলে এইতো ফেনসিডিল পাওয়া গেছে। এই ফেসনসিডিল পাওয়ার অভিযোগে ডিবি পুলিশের সদস্যরা এখলাসকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

পরের দিন ২৩ নভেম্বর দিনাজপুর জেলা মিস্ত্রি শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ থানায় যোগাযোগ করলে থানা কর্তৃপক্ষ ডিবি পুলিশের সাথে যোগাযোগ করতে বলে। নেতৃবৃন্দ ডিবি অফিসে যোগাযোগ করলে ডিবির ওসি আপনারা আন্দোলন করেন আমরা আমাদের কাজ করব এমন তাচ্ছিল্য প্রদর্শন শ্রমিক নেতৃবৃন্দের সাথে দূর্ব্যবহার করেন। পরে শ্রমিক নেতৃবৃন্দ সেখান থেকে ফিরে আসেন।

স্মারকলিপিতে আরো উল্লেখ করা হয়, গত ২৩.০৬.২০১৩ তারিখে এখলাসের কন্যা শিল্পিকে দুর্বত্তরা বাড়ী থেকে মোবাইলে ডেকে নিয়ে হত্যা করে কাঞ্চন রেল স্টেশনের কাছে রেল লাইনের ফেলে রেখে হত্যা করে ট্রেনে কাটা পড়ে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়া হয়। এই ঘটনার সাথে জড়িত দিনাজপুর শহরের রামনগর এলাকার কয়েকজনকে আসামী করে এখলাস একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার আসামী সাজুকে আটক করে জেলে পাঠায় পুলিশ। উক্ত ঘটনার জেল ধরে অন্য আসামীরা ডিবি পুলিশের সহায়তায় এখলাসের বাসার গেটে ফেনসিডিল রেখে তাকে সাজানো অভিযোগে ধরিয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, এটি একটি মিথ্যা ও সাজানো নাটক। এই সাজানো ও মিথ্যা অভিযোগে আটক জেলা নির্মাণ মিস্ত্রি শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্য এখলাস আলীকে আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে মুক্তির দাবী করা হয়। পাশাপাশি ঘটনার সাথে জড়িত ডিবি পুলিশসহ অন্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ারও দাবী জানান তারা। অন্যথায় বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলার হুশিয়ারী দেন নির্মাণ মিস্ত্রি শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ।

এর আগে সোমবার বেলা ১১টায় দিনাজপুর জেলা নির্মাণ মিস্ত্রি শ্রমিক ইউনিয়নের প্রায় ২ হাজার শ্রমিকের এক বিশাল বিক্ষোভ মিছিল শহর প্রদক্ষিণ শেষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গেয়ে শেষ করে। পরে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা নির্মাণ মিস্ত্রি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ সাহাবুদ্দিন খোকন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ নূরুল ইসলাম নূরুল, সমাবেশে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন নির্মাণ মিস্ত্রি শ্রমিক ইউনিয়নের উপদেষ্টা রবিউল আউয়াল খোকা, হবিবর রহমান, জেলা শ্রমিকদলের সাধারণ সম্পাদক হামিদুর রহমান, শহর শ্রমিকদলের সদস্য সচিব হাবিবুর রহমান রানা প্রমূখ।

সমাবেশ শেষে জেলা নির্মাণ মিস্ত্রি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ সাহাবুদ্দিন খোকন ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ নূরুল ইসলাম নূরু’র নেতৃত্বে শ্রমিক নেতৃবৃন্দ জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের পক্ষ স্মারকলিপি গ্রহন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ এনামুল হক এবং পুলিশ সুপার নিজেই স্মারকলিপি গ্রহন করেন। স্মারকলিপি গ্রহন করে উক্ত দুই কর্মকর্তা এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন শ্রমিক নেতৃবৃন্দকে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email