মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০২৪ ১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সংখ্যালঘুর সাইনবোর্ডের অন্তরালে ভুয়া ওয়ারিশ সেজে সন্ত্রাসী বাহিনীর মদদে প্রকৃত মালিকের জমি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা চলছে

কাশী কুমার দাস,স্টাফ রিপোর্টার : দিনাজপুর সদর উপজেলার ১নং চেহেলগাজী ইউনিয়নের বড়ইল গ্রামের জনৈক বিশ্বনাথ রায়, বিপিন রায়, ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী মাধব ও রাজুগংরা ভুয়া ওয়ারিশ সেজে সন্ত্রাসী বাহিনী কর্তৃক জোরপূর্বক জমি দখলের ঘটনা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা চালিয়ে বিভ্রান্ত করছে প্রশাসনকে৷

বড়ইল গ্রামের মৃত শুকুরু বর্ম্মনের পুত্র মানিক চন্দ্র রায়, জীতেন্দ্র নাথ রায়, নীপেন্দ্র নাথ রায়, ধীরেন্দ্র নাথ রায়, মনোরঞ্জন রায় জানায়, বড়ইল মৌজার খতিয়ান ১৮ দাগে ১৬২৫ এ ৪৩ শতক, খতিয়ান ১৯ দাগে ১০৭৪ এ ৯৭ শতক, খতিয়ান ৪১১ দাগে ১৭২০ এ ১৩ শতক মোট ১৫৩ শতক জমি যুগ যুগ ধরে ওয়ারিশ সূত্রে ভোগ দখল করে আসছে৷ এর মধ্যে ১৭২০ দাগে ১৩ শতক ও ১৬২৫ দাগে ৪৩ শতক মোট ৫৬ শতক জমি নীলশ্বরী বর্মনী ক্রয় করেন এবং পরবর্তীতে তার মেয়ে ভানু বালা রায় ও জামাই মৃত শুকুর“ বর্ম্মনকে দান করে যান৷ সেই সুবাদে আমরা সন্তানরা উক্ত জমি ভোগদখল করে আসছি৷ অপরদিকে ১০৭৪ দাগে মোট ৯৭ শতক জমি আমাদের নানা ঈশ্বরবর্মন ও তার ভাই দীনবন্ধু বর্মন সিএস মতে ২ ভাই আট আনা করে ভাগ করে ভোগ দখল করে আসছিলেন৷ এরপর দীনবন্ধু বর্মন তার আট আনা অংশ ১৯৬৩ সালে একই এলাকার জনৈক ব্যক্তি মোঃ জাহিদ ইসলামের নিকট বিক্রয় করে দেয়৷ হঠাত্ করে দীনবন্ধু বর্মনের পুত্র বিশ্বনাথ রায় ও বিপিন রায় গত ২৫ ফেব্রুয়ারী ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী বাহিনীর নেতা মাধব, রাজু, অরুন, টংকসহ অন্যান্য সন্ত্রাসীদেরকে নিয়ে ভুয়া ওয়ারিশ দাবী করে জোরপূর্বক ফসলী জমিতে লাল ঝান্ডা লাগিয়ে দখল করে৷ এব্যাপারে আমরা বাধা দিতে গেলে তারা পরিকল্পিতভাবে ধারালো অস্ত্র দ্বারা হামলা চালিয়ে আমার আত্মীয় গোলি নামে এক ব্যক্তিকে গুরুতর আহত করে৷ উপায়ন্তর না পেয়ে থানায় ছুটে আসি৷ থানায় আমার বড় ভাই মানিক চন্দ্র রায় বাদী হয়ে কোতয়ালী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করি৷ অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ ঘটনাস্থলে যান এবং ঘটনাস্থল থেকে অবৈধ দখলদার হিসেবে বিশ্বনাথ, মাধব ও রাজুকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করে৷ বর্তমানে তারা জামিন নিয়ে এসে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে সন্ত্রাসী কায়দায় আবারো জমি দখল করার জন্য এবং আমাদের দোকানপাট দখলের জন্য সার্বক্ষনিকভাবে রাম দা, হকিষ্টিক নিয়ে আমাদের খোজাখুজি করতে থাকে৷ ভয়ে আমরা পালিয়ে ভিন্ন জায়গায় থাকি এবং ভীষণ নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি৷ এর ফলে আমাদের জমিতে যেতে না পারায় ফসল উত্পাদনে ব্যাঘ্যাত সৃষ্টি হচ্ছে৷

এদিকে বিষয়টি নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি করার জন্য এবং প্রশাসনকে বিভ্রান্ত করার জন্য সিডিএ জনসংগঠনের সহযোগিতায় সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন করে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রচার করা হয়৷ শাক দিয়ে মাছ ঢাকার অপচেষ্টা চালিয়ে সাংবাদিক স্বরূপ বকসী বাচ্চুর নামে মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন কুত্ষা রোটিয়ে তার ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা চালাচ্ছে৷ আমরা সাংবাদিক স্বরূপ বকসী বাচ্চুর নামে এই মিথ্যা সংবাদ এর তীব্র প্রতিবাদ করছি৷ বর্তমানে আমরা তাদের ভয়ে বাসায় থাকতে পারছি না৷ আমরাই নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি৷ যে কোন মুহুর্তে উক্ত সন্ত্রাসীরা আমাদেরকে মেরে গুম করে আমাদের জমি-দোকান দখল করে নিতে পারে৷ এছাড়াও বিভিন্ন ক্লাব প্রতিষ্ঠানের ঘরে অবৈধ অস্ত্র ও শহর থেকে আসা নিত্য নতুন মোটরসাইকেলসহ ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের আনা-গোনা প্রমাণ করে তারা বেপরোয়া হয়ে ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে৷ যে কোন মুহুর্তে আমাদের উপর হামলা চালিয়ে মেরে ফেলতে পারে৷ নিরাপত্তার জন্য গত শুক্রবার কোতয়ালী থানায় একটি জিডি দায়োর করা হয়েছে৷ এব্যাপারে পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি৷

 

Spread the love