সোমবার ৩ অক্টোবর ২০২২ ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘সরকারের সংকীর্ণতার সুযোগ নিতে পারে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী’

সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সারা বিশ্বে ঐক্য গড়ে উঠলেও সরকারের সংকীর্ণ মনোভাবের কারণে দেশে জাতীয় ঐক্য গড়ে উঠছে না বলে মনে করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এই ধরনের মনোভাব এবং দেশে গণতন্ত্রহীনতার অভাবে সন্ত্রাসী বা জঙ্গি গোষ্ঠী সুযোগ গ্রহণ করতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

বৃৃহস্পতিবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।

এ সময় তার পাশে দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, দলের মুখপাত্র আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবির খোকন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, সহ-দফতর শামীমুর রহমান ও আসাদুল করিম শাহীন, কৃষক দলের তকদির মো. জসিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সম্প্রতি দুজন বিদেশি হত্যাকা-সহ বেশ কয়েকটি ঘটনার জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করে মির্জা ফখরুল বলেন, এখন সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জাতীয় ঐক্য প্রয়োজন। কিন্তু দুর্ভাগ্য, জাতির এ অবস্থায় অপরাজনীতি করা হচ্ছে। ফলে জাতির ক্রান্তিলগ্নে জাতীয় ঐক্য গড়ে উঠছে না।

তিনি বলেন, এর আগেও দেশে জঙ্গিবাদের উত্থানের চেষ্টা হয়েছিল। সে সময় আলেম-ওলামারা মসজিদে মসজিদে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ভূমিকা রেখেছেন। তাদের সহযোগিতায় দেশ থেকে সফলভাবে জঙ্গিবাদের উত্থান নির্মূল সম্ভব হয়েছে।

সরকারের একটি অংশের সঙ্গে অপর অংশের কথার কোনো মিল নেই মন্তব্য করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, একটি অংশ বলছে, দেশে আইএসের মত ভয়ঙ্কর জঙ্গি গোষ্ঠির অস্তিত্ব আছে। আবার আরেকটি অংশ বলছে নেই। সবচেয়ে আশংকার বিষয়, দেশে গণতন্ত্রই নেই। গণতন্ত্রহীনতার সুযোগে দেশে জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাস মাথাচাড়া দিয়ে উঠে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের মানুষ সাহসের সঙ্গে অতীতে সব সমস্যার সমাধান করেছে, এখনো করবে। সরকার যদি দেশ ও দেশের মানুষকে ভালবাসে, স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে, তাহলে তারা জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার উদ্যোগ নেবে। সরকার যেহেতু চালকের আসনে রয়েছে, সেহেতু জাতীয় ঐক্য গঠনে তাদেরই উদ্যোগ নিতে হবে।

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন দেশ ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে গ্রহণযোগ্য হয়নি দাবি করেন তিনি বলেন, একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য আলোচনা প্রয়োজন। আলোচনার মাধ্যমে গণতন্ত্র বিকশিত হয়।

এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, দেশের গোটা শিক্ষা ব্যবস্থাই ভেঙে পড়েছে। শুধু মেডিক্যাল ভর্তি পরীক্ষা নয়, সব পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ আসছে। দুর্নীতি ও লুটপাট সব ব্যবস্থাপনাকে শেষ করে দিয়েছে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email