শনিবার ৩ জুন ২০২৩ ২০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সরকার দেশে চরম দুঃশাসন চালাচ্ছে : মির্জা ফখরুল

Bnpবিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, সরকার দেশে চরম দুঃশাসন চালাচ্ছে। এ অবস্থায় চুপ করে ঘরে বসে থাকার সময় নেই। আন্দোলনের মাধ্যমে জনগণের সরকার গঠন করতে হবে। তিনি বলেন, শুধু শহর কেন্দ্রীক আন্দোলনে সরকারের পতন ঘটানো যাবে না। গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে, শহর থেকে শহরে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। আজ বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ ভাসানী) ৫৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির সভাপতি এডভোকেট আজহারুল ইসলাম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা: মোস্তাফিজুর রহমান ইরান।
মির্জা ফখরুল সরকারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, এখনো সময় আছে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে রাজনীতির বর্তমান সঙ্কট সমাধান করুন। সবার অংশগ্রহণে নিরপেক্ষ নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন। না হলে জনগণের উত্তাল আন্দোলনের তরঙ্গে ভেসে যাবেন। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ মুখে গণতন্ত্রের কথা বলে। আসলে তারা জনগণের অধিকারকে হত্যা করতে চায়। তারা দলীয় স্বার্থে লুঠপাট লুণ্ঠন করেছে। এটা তাদের ইতিহাস। এ কারণে মওলানা ভাসানী তাদের নাম দিয়েছিলেন নিখিল বাংলাদেশ লুঠপাট সমিতি। তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ বাকশাল কায়েম করে গণমাধ্যম বন্ধ করেছিল। সংবিধান লঙ্ঘন করেছিল। এখন তাদের মন্ত্রী বলছে মিডিয়ায় সেন্সরশিপের কথা।
মহাসচিব বলেন, মিডিয়ার উপর নীরব সেন্সরশিপ চলছে। আওয়ামী লীগের মন্ত্রী সৈয়দ মোহসীন আলী বলেন, এমন আইন করা হবে যে আপনাদের লেখার স্বাধীনতা থাকবে না।