শনিবার ২ জুলাই ২০২২ ১৮ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সাংবাদিকদের সাথে দিনাজপুরে ১৮ দল সমর্থিত তদন্ত কমিটির মতবিনিময়

Bnp Pressদিনাজপুর প্রতিনিধি : বাংলাদেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে হলে মানুষে-মানুষে সম্প্রীতি আনতে হবে। সবার উপরে মানুষ সত্য তাহার উপরে না। এই সত্য প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বাংলাদেশকে সকল ধর্ম, বর্ণ সম্প্রদায়ের মিলন ক্ষেত্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

রোববার দুপুরে দিনাজপুর প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় সাবেক মন্ত্রী পরিষদ সচিব আব্দুল হালিম এ কথা বলেছেন। ১৮ দল সমর্থিত পেশাজীবীদের সমন্বয়ে বৃত্তর দিনাজপুর ও নীলফামারী অঞ্চলে সংখ্যালঘুদের উপর সাম্প্রতিক নির্যাতনের ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির আহবায়ক ও সাবেক মন্ত্রী পরিষদ সচিব আব্দুল হালিম দিনাজপুরের কর্ণাই ও মহাদেবপুর এলাকা পরিদর্শন শেষে গতকাল দুপুরে প্রেসক্লাবে মতবিনিময় করছিলেন। তিনি বলেন, সংখ্যালঘুসহ সকল নির্যাতনের যদি প্রকৃত ও সঠিক তথ্য উদ্ঘাটন না হয় তাহলে প্রকৃত দোষীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া সম্ভব হবে না। তাই কোন ঘটনাই এক চোখে দেখে বিচার করা সঠিক নয়, দুই চোখ দিয়েই ঘটনার কারণ তদমত্ম করলে সত্যি ও প্রকৃত অবস্থা দেখা সম্ভব।

মতবিনিময়কালে তদন্ত কমিটির সদস্য সচিব এবং জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমেদ বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম জিয়ার নির্দেশে আমরা এই অঞ্চলে সংখ্যালঘু নির্যাতনের ঘটনা নিরপেক্ষ তদন্তে এসেছি। আমরা কর্ণাইসহ এর আশেপাশের এলাকায় গেছি এবং নির্যাতিত ব্যক্তি, তাদের প্রতিবেশি এবং দায়িত্ব পালনরত বিজিবি’র সাথে কথা বলেছি। আমরা চাই নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত সত্য বের হয়ে আসুক এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠিত হোক।

সাবেক মন্ত্রী তদন্ত কমিটির সদস্য ও হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান কল্যান ফ্রন্টের আহবায়ক গৌতম চক্রবর্তী বলেন, সরেজমিন তদমেত্মর জন্য আমরা এসেছি। আমরা প্রকৃত সত্য বের করে দেশনেত্রীর কাছে আমাদের রিপোর্ট পেশ করব এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ বাংলাদেশে যে ঘটনা হচ্ছে তার জন্য দায়ীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে দাবী জানাব।

মতবিনিময় সভায় তদন্ত কমিটির সদস্য ও ড্যাব নেতা অধ্যাপক ডাঃ এজেডএম জাহিদ হোসেন বলেন, সংখ্যালঘু নির্যাতনের ঘটনাকে কেউ কেউ রাজনৈতিক ইস্যু বানিয়ে বিভিন্নভাবে চেষ্টা করেছে। আবার মসজিদে তালা মারা দেখেছি আজান দেয়ার লোক নাই এটাও বাস্তবতা। অথচ আমরা যখন সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এলাকার মানুষের সাথে কথা বলেছি। সেখানে হিন্দু, মুসলিম সবাই বলেছে তারা আগের অবস্থায় ফিরে যেতে চায়। তারা তাদের মধ্যে যে সৌহার্দ সম্প্রীতি ছিল সেই অবস্থায় ফিরে যেতে চায়। তারা বলেছে হিন্দু মুসলিম আমরা সবাই ভাই ভাই। আমরা একসাথে থাকতে চাই। ওই এলাকার মানুষের এই পজেটিভ দিক আমাদেরকে অবশ্যই ভেবে দেখতে হবে। কারণ বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এই সম্প্রীতি রক্ষা করতে হবে। আমরা যে তদমত্ম করছি সেটা নিরপেক্ষভাবেই করছি। কারণ এর মধ্য দিয়ে প্রকৃত সত্য বের করার একটা প্রচেষ্টা আমাদের আছে। আমরা এই প্রচেষ্টাকে পজেটিভ ওয়েটে ব্যবহার করতে চাই।

সভায় প্রকৌশলী রিয়াজুল ইসলাম বিজু বলেন, সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে আমরা কোন খন্ডিত চিত্র চাই না। সেই জন্য আমরা ভিক্টিম, বিজিবি, এলাকাবাসী সকলের সাথে কথা বলার চেষ্টা করেছি। সবাই বলেছে আমরা শান্তি চাই। শান্তি কিভাবে ফিরিয়ে আনা যায় সেই লক্ষ্যে কাজ করতে হবে।

মতবিনিময় সভায় দিনাজপুর জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মুকুর চৌধুরী ও ড্যাবের স্থানীয় শাখার সাধারণ সম্পাদক ডাঃ জিয়াউল হকসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী এসময় উপস্থিত ছিলেন।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email