বৃহস্পতিবার ৬ অক্টোবর ২০২২ ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সাদুল্যাপুর থানার এসআই রববানিকে বদলির দাবি এলাকাবাসীর

সাদুল্ল্যাপুর (গাইবান্ধা) সংবাদদাতা

গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই গোলাম রববানির বিরুদ্ধে কয়েকটি পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় উপজেলার সচেতন মহলের মধ্যে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। গত কয়েকদিন স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় এসআই রববানির বিরুদ্ধে নিরীহ লোকজনকে হয়রানি, চার্জশিটের জন্য ঘুষ আদায়, ইয়াবা আটক করে বাণিজ্য, থানায় দালাল পোষাসহ নানা বিতর্কিত কর্মকা- এবং থানা কোয়াটারে নৈশ্য আমোদ ফুর্তি করতে অতিথি শিল্পীদের এনে গানবাজনার অভিযোগ শীর্ষক সংবাদ প্রকাশ হয়েছে। এসব কারণে এলাকাবাসী তার বদলী দাবি করেছেন। তার বিরুদ্ধে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর এসআই রববানি এ পত্রিকা সংগ্রহ করেন। তিনি নিজেকে ধোয়া তুলসী পাতা প্রমাণ করার জন্য কয়েকদিন ধরে নিজের ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে ভুক্তভোগীদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। তাদের একজনকে থানায় ডেকে এনে উল্টাপাল্টা বুঝিয়ে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়ার চেষ্টা করেন বলে এ প্রতিবেদকের মোবাইল ফোনে জানান ওই ভুক্তভোগী। এছাড়া রববানি সংবাদকর্মীদের নিয়ে নানাভাবে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে আসছেন।

 

স্থানীয় ও জাতীয় দৈনিকসহ একাধিক পত্রিকায় এসআই রববানির (বিপিনং-৬৮৯৫০৭৪৪৭৪) অপকর্ম সংক্রান্ত সংবাদ ফলাও করে প্রকাশ হয়। কিন্তু তিনি এখন পর্যন্ত বহাল তবিয়তে আছেন। সংশ্লিষ্ট পুলিশ সুপার রববানির অপকর্মের বিষয় অবগত থাকলেও তিনি তার বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করেননি। কোন আদৃশ্য শক্তির বলে এসআই গোলাম রববানি এখনো বহাল তবিয়তে রয়েছেন এ নিয়ে জনমনে বিভিন্ন প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। রববানির খুঁটির জোর কোথায় এলাকাবাসী তা জানতে চায়। জরুরীভাবে রববানির বিরুদ্ধে সকল অপকর্মের তদন্ত সাপেক্ষে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহন ও অপসারণের দাবী জানিয়েছেন সচেতন এলাকাবাসী।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকে রববানির কাছে এ রিপোর্ট সংক্রামত্ম প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন, লেখালেখি করে কি করবে সাংবাদিকরা। আমার কেউ কিছু করতে পারবে না কারণ আমার অনেক বড় চ্যানেল আছে। তার দম্ভোক্তিতে লোকজন হতাশ হয়ে পড়েছেন। তবে এ রিপোর্ট প্রকাশ হওয়ায় প্রতিনিধি ও পত্রিকার সম্পাদককে অনেকে অভিনন্দন জানালেও রববানির বিরুদ্ধে শাস্তিমুলক কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় উপজেলার সচেতন মহলের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে যতই সংবাদ প্রকাশ হচ্ছে, ততই ভুক্তভোগী লোকজন এ প্রতিবেদককে রববানির বিরুদ্ধে নতুন নতুন তথ্য দিচ্ছেন। থানার বিশ্বস্ত একটি সুত্র জানায়, এ আগে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে রববানির বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের হয়। বর্তমানে মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে। সে কারণে তার প্রমোশন হয় নাই। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরো কয়েক পুলিশ সদস্য বলেন, নিজের সোর্স পরিচয়দানকারী কয়েকজন দালালদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তুলে রববানি উপজেলার জাল রুপার মুদ্রার কারবারি চক্রের সদস্যদের কাছ থেকে মাসিক অর্থ আদায়ের চেষ্টা করছেন। তাছাড়া ওই চক্রের সদস্যদের বাড়িতে রাতেদিনে অবাধে যাতায়াত করেন তিনি।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email