শনিবার ২ মার্চ ২০২৪ ১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এদেশে কোন উগ্রপন্থি ও জঙ্গীবাদের স্থান নেই-হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি

দিনাজপুর প্রতিনিধি ঃ জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির হৃদয়ে আবদ্ধ শারদীয় দূর্গোউৎসব বার বার প্রমাণ করছে এদেশে উগ্রপন্থি ও জঙ্গীবাদের কোন স্থান নেই উল্লেখ করে বলেছেন, কতিপয় ব্যাক্তি ধর্মের নামে বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করতে চায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এসব উগ্রপন্থি ও জঙ্গীদের কঠোর হস্তে দমন করতে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করেছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজায় সকলই আনন্দ ও উৎসবের সাথে পালন করছে। যেখানে আনন্দ উৎসবে কোন ভেদাভেদ নেই। দিনাজপুরে উৎসবের যে জোয়ার বইছে সেই জোয়ার প্রমাণ করে দিনাজপুরের সকল মানুষ ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধ ভাবে উৎসব পালন করছে। তিনি সম্প্রতি ঘটে যাওয়া কয়েকটি ঘটনার চিত্র তুলে ধরে বলেন, ধর্মের নামে এরা দেশ ও জাতির কলঙ্ক। এদের লাশ পিতামাতা ও পরিবাররাও গ্রহন করে না।  মানুষ হত্যাকারী এসব পশুদের সমুচিত জবাব দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রস্তুত রয়েছে। এদেশের সকল ধর্ম, বর্ণের মানুষ সমমান ভাবে নিজ নিজ ধর্ম পালন করবে। ‘‘ধর্ম যার যার দেশ সবার’’ এই অঙ্গিকারে স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তিকে এ্যক্যবদ্ধ হতে হবে। হুইপ ইকবালুর রহিম গতকাল দিনাজপুর সদর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী রাজবাড়ী দুর্গামন্ডব, সুইহারী আশ্রম, সুইহারী অসীম বাবুর পারিবারিক মন্ডপ, ভূষিবন্দর, রামডুবি, রায়সাহেবাড়ী পূজামন্ডপসহ বিভিন্ন পূজামন্ডপ পরিদর্শনকালে এসব কথা বলেন।

w p 2ঐতিহ্যবাহী রাজবাটি পূজা মন্ডপে রাজদেবত্তর এ্যাস্টেটের এজেন্ট অমলেন্দু ভৌমিক, প্রেম নাথ, দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি চিত্ত ঘোষ, ডাঃ বি.কে. বোস, দিনাজপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইমদাদ সরকার, সাধারন সম্পাদক বিশ্বজিৎ ঘোষ কাঞ্চন, দিনাজপুর সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ওয়াহেদুল আলম আর্ষ্টিট, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক এনাম উল্লাহ্ জেমী, ইউপি চেয়ারম্যান অশোক কুমার রায়, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি দুলাল হোসেন, শহর যুব লীগের যুগ্ন আহবায়ক হাজী পলাশ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ন আহবায়ক শেখ শাহ্ আলম, ছাত্রলীগের যুগ্ন আহবায়ক সাদেকুর রহমান বিপ্লব প্রমুখ। হুইপ ইকবালুর রহিম বিভিন্ন মন্ডপে হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দের সাথে কুশল  বিনিময় করেন এবং খোজ খবর নেন। এসময় হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ স্বাছন্দে পূজা উৎসব পালন করতে পেরে  সন্তোষ প্রকাশ করেন।

Spread the love