বুধবার ১৮ মে ২০২২ ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সিটি কর্পোরেশন ঘোষণার অপেক্ষায় দিনাজপুরবাসী

দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুর পৌরসভা সিটি কর্পোরেশন হচ্ছে এ আলোচনা ও সমলোচনার ঝড় উঠেছে। দিনাজপুরবাসীর দীর্ঘদিনের কাঙ্খিত এ স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দিতে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি ২০০৮ সাল থেকে পরিশ্রম করে আসছেন।

 

চলতি সংসদ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রশোণত্তর বক্তব্যে দিনাজপুর-ময়মনসিংহ পৌরসভা সিটি কর্পোরেশন হওয়ার সরকারের প্রক্রিয়ায় রয়েছে এই বক্তব্যের পর দিনাজপুরে শুরু হয়েছে আনন্দ ও উৎসব।

 

অফিস-আদালত, হাট-বাজার, হোটেল-রেস্তোরায় সিটি কর্পোরেশন হওয়াকে কেন্দ্র করে নানা আলোচনা সমালোচনা চলছে। জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেন, দিনাজপুরবাসীর দীর্ঘদিনের কাঙ্খিত স্বপ্ন দিনাজপুর পৌরসভা সিটি কর্পোরেশন হবে।

 

তিনি বলেন, ইতিমধ্যেই দিনাজপুর শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও খেলার নগরীতে পরিণত হয়েছে। সিটি কর্পোরেশন হলে নাগরিক সুযোগ সুবিধা বাড়বে। কর্মসংস্থান বাড়বে। নারীরা এগিয়ে যাবে। পরিকল্পিত নগর হিসেবে অর্থনৈতিক ভাবে মানুষ সাবলস্বী হবে। অবহেলিত জনগন সেবা পাবে। সরকারি বরাদ্দ বৃদ্ধি পাবে। আমি ২০০৮ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আবেদন করেছি দিনাজপুর পৌরসভাকে সিটি কর্পোরেশনে উর্ত্তীন করতে। সরকার সেই লক্ষ্য নিয়েই এগিয়ে যাচ্ছে।

 

দিনাজপুর জেলা প্রশাসক আহমদ শামীম আল রাজী বলেন, সিটি কর্পোরেশন করার জন্য সীমানা নির্ধারনসহ পূর্ণাঙ্গ প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। সম্ভবনার জেলা দিনাজপুর পৌরসভাকে সিটি কর্পোরেশন করা হলে অর্থনৈতিক ভাবে দিনাজপুর এগিয়ে যাবে। তবে তিনি জোর দিয়ে বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক দক্ষতার উপর গুরুত্ব দিতে হবে।

 

দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, দিনাজপুর পৌরসভাকে পর্যাপ্ত বরাদ্দ দেয়া হয় না। সিটি কর্পোরেশন হলে আনন্দের সীমা থাকবে না। নাগরিকদের মর্যাদা বাড়বে । বাড়ি, পানি, ট্রেড লাইসেন্সের ট্যাক্স বাড়বে। সরকার এক্ষেত্রে বরাদ্দ দেয়ার পূর্বেই ট্যাক্সের বোঝা জনগনের উপর চাপিয়ে না দিলে জনগন কিছুটা হলেও রেহাই পাবে। তিনি বলেন, সরকারি বরাদ্দের উপরেই জনগনের সেবা রির্ভর করছে।

 

দিনাজপুর চেম্বার অব কর্মাস এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির সিনিয়র সহ-সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, সিটি কর্পোরেশন হলে সাময়িক ভাবে ট্যাক্সের বোঝা বাড়বে তবে আগামী প্রজন্ম এর সুফল ভোগ করবে। এখনই সিটি কর্পোরেশন না হলে আগামী প্রজন্মের কাছে আমরা দায়ী হয়ে থাকব।

 

দিনাজপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক বিশ্বজিৎ ঘোষ কাঞ্চন বলেন, সিটি কর্পোরেশন হলে শহর প্রসারিত হবে। নাগরিক মর্যাদা বাড়বে। শিল্প কলকারখানা বাড়বে। বিরল স্থল বন্দর চালু হলে দিনাজপুরসহ আধুনিক শহরে রুপান্তরিত হবে।

 

দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি বাবু চিত্ত ঘোষ সিটি কর্পোরেশনের আলোচনাকে দিনাজপুরবাসীর জন্য সুখবর হিসেবে দেখছেন। তবে তিনি করেন বর্ধিত কর’র সাথে সরকারি বরাদ্দ বাড়াতে হবে। জনগনের সুযোগ সুবিধা না বাড়িয়ে কর বৃদ্ধি করা যাবে না। উন্নয়ন ও নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করার পর কর’র বোঝা চাপলে তা জনগন মেনে নেবেন।

 

নারী নেত্রী সেহেলী আক্তার ছবি ও শাহানাজ বেগম শিউলি সিটি কর্পোরেশন হলে নারীদের মর্যাদা বাড়বে, নারীদের জন্য কর্মস্থানের সৃষ্টি হবে, নারীরাও এক ধাপ এগিয়ে যাবে।

 

দিনাজপুর ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি সহিদুল ইসলাম বলেন, সিটি কর্পোরেশন হলে দিনাজপুরের মানুষের মর্যাদা বাড়বে এটা যেমন সত্যি ঠিক তেমনি কর’র বোঝা বাড়বে। তাই ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সকল স্তরেই উন্নয়ন করতে হবে। অর্থনৈতিক ভাবে সাবলম্বি হলে সিটি কর্পোরেশনের সুফল ঘরে ঘরে পৌছে পৌছে যাবে।

 

দিনাজপুর জেলা আইনজীবি সমিতির অন্যতম সদস্য অতিরিক্ত পিপি এ্যাড.সাইফুল ইসলাম বলেন, সিটি কর্পোরেশন দিনাজপুরবাসীর জন্য আনন্দের বার্তা। সিটি কর্পোরেশন হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্বাস্থসহ সর্বস্থরেই উন্নয়ন বাড়বে। আধুনিক শহর হিসেবে দিনাজপুর পরিচিতি লাভ করবে।

 

রিক্সাওয়ালা, দিনমজুর, হোটেল বয়, কৃষক, শ্রমিক সকলেই আশা প্রত্যাশা সিটি কর্পোরেশন হলে তাদের আয় বৃদ্ধি পাবে। দিনাজপুর পৌরসভা কবে হবে সিটি কর্পোরেশন এই অপেক্ষায় দিনাজপুরবাসী।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email