রবিবার ২১ এপ্রিল ২০২৪ ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সূর্য যেদিকে ওঠে ওরা সেই দিকেই যায় : কাদের সিদ্দিকী

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আব্দুল কাদের সিদ্দিকী বলেছেন,‘দেশের অবস্থা ভাল না। দারোগা-পুলিশের ওপর বেশী ভর কইরেন না। সূর্য যেদিকে ওঠে ওরা সেই দিকেই যায়। ১৪ আগস্ট যারা আপনাদের পা ধরে চুমো খাইত, ১৫ তারিখে তারাই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে।’

মতিঝিলে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের অফিসের সামনে শনিবার দুপুরে এক জনসভায় সভাপতির বক্তব্যে কাদের সিদ্দিকী এ সব কথা বলেন। দলটির ১৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এ জনসভার আয়োজন করা হয়।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘আপনাকে যারা বুদ্ধি দিচ্ছে তারা ভাল কাজ করছে না। ৫ তারিখের নির্বাচন কেউ মানেনি। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ১৫৩ প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছে। এটি কোনো নির্বাচন হয়নি। আপনি আবার নির্বাচনের ব্যবস্থা করেন। জয়ী হোন, তারপর কেয়ামত পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকেন। আপনি এখন জবরদখল প্রধানমন্ত্রী।’

কাদের সিদ্দিকী শেখ হাসিনার উদ্দেশে আরও বলেন, ‘আপনার পুলিশ যদি মতিঝিলে আমার অবস্থান কর্মসূচিতে ডিস্টার্ব বন্ধ না করে, তাহলে আমি আপনার অফিসের সামনে অবস্থান নেব। তখন কেউ আমাকে ফেরাতে পারবে না।’

কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আমি আপনাকে আমার সঙ্গে কিংবা খালেদা জিয়ার সঙ্গে আলোচনা করতে বলিনি। যার সঙ্গে আলোচনা করলে দেশে শান্তি আসে তার সঙ্গে আলোচনায় বসেন। প্রয়োজনে শান্তির জন্য চাড়ালের সঙ্গে আলোচনায় বসেন। আপনি জল্লাদ হবেন না। আপনি জালেম মা হবেন না।’

 

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার সঙ্গে বিজেপি সভাপতির কথা হয়েছিল কিনা, জানি না। তবে আমার স্ত্রী গতকাল (শুক্রবার) ভারতের রাষ্ট্রপতির সঙ্গে কথা বলেছেন। দেশের এ অবস্থায় তো কেউ চুপ থাকতে পারে না।’

এ ছাড়া তার স্ত্রী রবিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে যাবেন বলে জানান কাদের সিদ্দিকী।

তথ্যমন্ত্রীর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ইনু কথা বললে আমরা শরীর শির-শির করে। জাসদ গণবাহিনী সৃষ্টি করে মানুষ মেরেছে। ওর কথা মানুষ শুনতে চায় না।’

তিনি বলেন, ‘পেট্রোলবোমা বিএনপিও মারে, আওয়ামী লীগও মারে। আওয়ামী লীগ সরকারের লোক দিয়ে বোমা মেরে দোষ চাপায়। অপরদিকে, বিএনপি মনে করে বোমা মারলে সরকারের পতন ঘটান যাবে।’

মতিঝিল থানার ওসি ফরমান আলীকে উদ্দেশ করে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘আমি যখন টুঙ্গিপাড়া যেতাম ওর বাবা আমার সঙ্গে সারাক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকত। ওর ভাই সোলেমান আমার সঙ্গে ছবি তোলার জন্য দাঁড়িয়ে থাকত। আর ও আমার সামিয়ানা নিয়ে যায়, মঞ্চ ভেঙে দেয়। পারলে আমারে নিয়ে যাও।’

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন— বিকল্পধারা বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের আহ্বায়ক শেখ শওকত হোসেন নিলু, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান তালুকদার, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকী প্রমুখ।

কাদের সিদ্দিকী মতিঝিলে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে প্রধানমন্ত্রীকে সংলাপের উদ্যোগ গ্রহণ ও বিএনপিকে অবরোধ প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে গত ২৮ জানুয়ারি থেকে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন।

Spread the love