রবিবার ১৪ অগাস্ট ২০২২ ৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সৈয়দপুর পৌরসভার পাকা রাস্তা নির্মাণের পরেই বেহালদশা

মো. জাকির হোসেন, রংপুর ব্যুরো চীফ : নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌরসভার অধীনে নির্মিত পাকা রাস্তা ও ড্রেন নির্মাণে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ উঠেছে। অতি নিমণমানের সামগ্রী ব্যবহার করায় ও ঠিকাদারের সীমাহীন দুর্নীতির কারণে এসব পাকা রাস্তা ও ড্রেন নির্মাণের পর পরেই ব্যবহার অনুপযোগি হয়ে পড়ছে। এতে করে সাধারণ মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।

শহরের কাহীহাট থেকে পাটেয়ারীপাড়া পৌর মেয়রের বাড়ি পর্যন্ত ও মকবুল হোসেন বিজনেস ম্যানেজমেন্ট কলেজ থেকে পূর্ব দিকে বানিয়াপাড়া পর্যন্ত প্রায় ৭ কিলোমিটার সড়কটি কয়েকদিন আগেই পৌরসভার ঠিকাদারের মাধ্যমে পাকা করা হয়। সড়ক দুটি পাকা হওয়ায় পৌরবাসী তাদের দুর্দশা লাঘব হবে বলে মনে করেন। কিন্ত ঠিকাদার অতি নিমণমানের কাজ করায় ভেঙ্গে চুরমার হয়ে গেছে। পিচ ওঠে মাঝে মধ্যে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। কোথাও পাকা সড়কের কোন অস্তিত্বও নেই।

সড়কের সলিং ওঠে হাড্ডিসার হয়ে গেছে। পাকা সড়কের দুধার ভেঙ্গে মুল পাকা সড়ক হয়েছে সিঁথির মতো। ফলে এলাকার মানুষের দুর্দশা লাঘবের চেয়ে আরও দুর্দশা বেড়েছে কয়েকগুণ। রিকশা, অটো বাইক কেউ এই সড়কে আসতে চায়না। আসলেও এলাকাবাসীকে দ্বিগুণের বেশি ভাড়া গুণতে হয়। পৌরসভার বেশির ভাগ পাকা সড়ক ও ড্রেনের কাজ পরিচিত ঠিকাদাররা করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। পৌরসভার তদারকির অভাবে ঠিকাদার ইচ্চেমতো পাকা সড়কের কাজ করে বিল তুলেছেন। এই পাকা সড়কের বিভিন্ন খানাখন্দকে ও ধ্বসে পড়া অংশে মাটির কাজ করে চলাচলের উপযোগি করা হচ্ছে।

শহরের বেশকিছু এলাকায় অপরিকল্পিতভাবে ড্রেন নির্মাণ করা হচ্ছে। অতি নিমণমানের ইট, খোয়া, বালু ব্যবহার করে এসব ড্রেন নির্মাণ করা হচ্ছে। এছাড়া নির্মিত ড্রেনের সাথে মাস্টার ড্রেনের সংযোগ না থাকায় আবারও সামান্য বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হবে বলে আশংকা করছেন দোকানী ও পৌরবাসী।

এদিকে পথচারি ও যান চলাচলের সুবিধার্থে সড়ক প্রসস্থ করা হলেও এর সুফল পাচ্ছেন না কেউ। লাভবান হচ্ছে সড়কের দুপাশের প্রতিষ্ঠান মালিকরা। পৌরসভার পক্ষ থেকে দোকানের মালামাল সড়ক থেকে সরিয়ে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানে রাখার আহবান জানানো হলেও এই আদেশ মানছেন না কেউ। শহরের প্রাণকেন্দ্রের প্রধান ছয় সড়কে এমন দখলবাজি চলছে।

পাকা সড়ক ও ড্রেন নির্মাণ সম্পর্কে পৌরসভার প্রকৌশল শাখায় যোগাযোগ করলে কেউ মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। এমনকি তথ্য দিতেও অস্বীকৃতি জানানো হয়।

Pourasava Road-2 JAKIR

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email