শনিবার ২০ এপ্রিল ২০২৪ ৭ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সোমবার সারাদেশে জামায়াতের সকাল-সন্ধ্যা হরতাল

সর57002কারের পরিকল্পিত রাজনৈতিক হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে সোমবার সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী। রবিবার দলের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান এক বিবৃতিতে এ ঘোষণা দেন।
ডা. শফিকুর রহমান বলেন, সরকার জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আব্দুল কাদের মোল্লাকে হত্যার উদ্দেশ্যে তথাকথিত মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে মিথ্যা মামলা দায়ের করে। সরকারের দলীয় লোকদের দিয়ে গঠিত তদন্ত কমিশন, প্রসিকিউশন সেল পরিকল্পিতভাবে মিথ্যা কল্প কাহিনী রচনা করে ট্রাইব্যুনালে কাল্পনিক মিথ্যা সাক্ষী হাজির করে। তারা অপরিচিত মহিলাকে ভূয়া মোমেনা বেগম সাজিয়ে আদালতে হাজির করে মিথ্যা সাক্ষ্য প্রদান করে। প্রকৃত মোমেনা বেগমের ছবি জল্লাদখানায় সংরক্ষিত আছে। ঐ মোমেনা বেগমের সাথে আদালতে উপস্থিত করা মোমেনা বেগমের চেহারার কোনো মিল নেই।
তিনি বলেন, ঐ কাল্পনিক ও মিথ্যা সাক্ষ্য বিবেচনায় নিয়ে ট্রাইবুনাল আব্দুল কাদের মোল্লাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডে দন্ডিত করে। কিন্তু সরকার আব্দুল কাদের মোল্লাকে হত্যার উদ্দেশ্যে রায়ের ১৩ দিন পর আইন সংশোধন করে সুপ্রিম কোর্টে আপিল করে। সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ এ সাজানো মিথ্যা সাক্ষ্য বিবেচনায় নিয়ে ও শোনা সাক্ষীর উপর ভিত্তি করে আব্দুল কাদের মোল্লাকে মৃত্যুদন্ডে দন্ডিত করে। আপিল বিভাগের এ রায় নজিরবিহীন।
বিবৃতিতে দাবি করা হয়, সরকারের এ বিচার প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত। দেশি-বিদেশি আইনবিদ, মানবাধিকার সংস্থা, জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশন ও আন্তর্জাতিক মহল থেকে এ আইনকে একটি কালো আইন ও ট্রাইব্যুনালকে আন্তর্জাতিক মানদন্ড সম্পন্ন নয় বলে অভিমত দিয়েছেন। তারা আইন সংশোধনের সুনির্দিষ্ট সুপারিশমালাও সরকারের নিকট পেশ করেছেন। সরকার সেই সব বিবেচনায় না নিয়ে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য বিচারের নামে প্রহসন চালায়। গোটা বিচার প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্ত হয়ে আছে নানা কেলেংকারি। স্কাইপ কেলেংকারি, ভুয়া সাক্ষী আদালতে উপস্থাপন, প্রত্যক্ষ পরোক্ষভাবে সরকারের হস্তক্ষেপ এ বিচারকে দেশে-বিদেশে প্রশ্নবিদ্ধ ও বিতর্কিত করেছে।
তাছাড়া ট্রাইবুনাল গঠনের পর বিচারপতিদের সাথে আইনমন্ত্রীর বৈঠক, সরকার দলীয় নেতাদের জামায়াত নেতাদের ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ড প্রদানের ঘোষণা ইত্যাদির মাধ্যমে সরকার বিচার প্রক্রিয়াকে সরাসরি প্রভাবিত করেছেন বলে বিবৃতিতে বলা হয়।
এ অন্যায় ও রাজনৈতিক হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে ঘোষিত হরতাল কর্মসূচি দেশের সর্বস্তরের জনগণকে শান্তিপূর্ণভাবে পালনের জন্য আহ্বান জানান জামায়াতের এ মুখপাত্র।

Spread the love