বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ ৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাবিপ্রবিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত

মোঃ আব্দুর রাজ্জাক, দিনাজপুর প্রতিনিধি : যথাযোগ্য মর্যাদা ও উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে মহান বিজয় দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি পালনের লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ হতে ব্যাপক কর্মসূচী নেয়া হয়।

 

সকাল ৯টায় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর মো. রুহুল আমিন এর নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা, ছাত্র-ছাত্রী, কর্মচারী ও হাবিপ্রবি স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা এক বিশাল র‌্যালীতে অংশ নেয়। সকাল সাড়ে ৯ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর মো. রুহুল আমিন শহীদ বেদীতে পুষ্পমাল্য অর্পন করেন। এরপর ক্রমান্বয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি, প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরাম, সাদা দল, আইআরটি, প্রগতিশীল কর্মকর্তা পরিষদ, শেখ রাসেল হল, ডরমিটরি-২ (জিয়া হল), তাজউদ্দিন আহমেদ হল, ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল, আইভি রহমান হল, কবি সুফিয়া কামাল হল, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ হাবিপ্রবি শাখা, বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাব, অফিসার্স ফোরাম, কেন্দ্রীয় খামার, হাবিপ্রবি স্কুল, প্রগতিশীল কর্মচারী পরিষদ, কর্মচারী ক্লাবসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠন পুষ্পমাল্য অর্পন করেন।

 

পুষ্পমাল্য অর্পন শেষে ভাইস-চ্যান্সেলর মহোদয়ের মহান বিজয় দিবসের বাণী পাঠ এবং সংশি­ষ্ট সকলের মধ্যে তা বিতরণ করা হয়। সকাল সাড়ে ১০ টায় ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক প্রফেসর ড. মো. শাহাদৎ হোসেন খানের সভাপতিত্বে বিজয় দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর মো. রুহুল আমিন।

 

অনুষ্ঠানে অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. মো. আনিস খান, প্রফেসর ড. বলরাম রায়, প্রফেসর ড. এটিএম শফিকুল ইসলাম, প্রফেসর ডাঃ মো. ফজলুল হক। কর্মকর্তাদের মধ্যে কৃষিবিদ মো. ফেরদৌস আলম, আ.ন.ম ইমতিয়াজ হোসেন, কর্মচারীদের মধ্যে মো. পারভেজ। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

 

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর মো. রুহুল আমিন বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ শুধু আমাদের বিজয়ের ইতিহাস নয়, আমাদের দেশপ্রেমের অনুপ্রেরণা যোগায় এবং আমাদেরকে উজ্জীবিতও করে। গত ৪৩ বছরে আমাদের অনেক অর্জন রয়েছে। আমাদের দারিদ্য পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। উৎপাদন বেড়েছে, খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা এসেছে। অনেক মজবুত হয়েছে আমাদের অর্থনীতি। বর্তমানে বাংলাদেশ ব্যাংকে ২২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রিজার্ভ রয়েছে। দেশে শিক্ষার হার বেড়েছে, স্বাস্থ্য পরিসেবা এগিয়েছে। আমি মনে করি উন্নয়নের এধারা অব্যাহত থাকলে ২০৪২ সালে আমাদের উন্নত রাষ্ট্র হওয়া সম্ভব।

 

বিজয় দিবস উপলক্ষে শিশু-কিশোরদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত প্রতিযোগিতা উদ্বোধন করেন ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর মো. রুহুল আমিন। বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রীতি ভলিবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। বাদ জোহর কেন্দ্রীয় মসজিদে শহীদদের বিদেহী আত্নার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হয়।

Spread the love