বুধবার ২৯ মার্চ ২০২৩ ১৫ই চৈত্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

হিলি স্থল বন্দরে চলছে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট

Hiliহিলি স্থলবন্দরে চলছে

অনির্দিষ্টকালের

ধর্মঘট। পরপর দুই দিন কর্ম

বিরতির পর

গতকাল মঙ্গলবার থেকে এ ধর্মঘট ডেকেছে

হিলি স্থল বন্দরের আমদানি-রফতানিকারক

ব্যবসায়িসহ বন্দর সংশি¬ষ্ট ৫টি সংগঠন।

ধর্মঘটের কারণে সকল প্রকার আমদানি-

রফতানি বন্ধ ছিল। ধর্মঘট সফল করার

লক্ষ্যে ব্যবসায়িরা গতকাল মঙ্গলবার সকাল

সাড়ে ১১টায় বন্দর এলাকা থেকে একটি

বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। বন্দরের

ব্যবসায়িরা আমদানিকৃত পন্যে বিজিবির

অবৈধ হস্তক্ষেপ বন্ধ, অযথা মামলা দিয়ে

হয়রানী বন্ধ ও ৩ বিজিবি ব্যাটালিন

অধিনায়কের অপসারনর এই ৩ দাবিতে

আমদানি-রফতানিকারক গ্রুপ, বাংলাহিলি

সিএন্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশন, হিলি

স্থলবন্দর ট্রাক মালিক গ্রুপ, ট্রাক চালক

সমবায় সমিতি, কুলি শ্রমিক ইউনিয়ন সহ

বন্দর সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলো একাত্ততা ঘোষনা

করে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ শেষে

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে একটি

স্বারকলিপি প্রদান করেন।

পরে বন্দরের ২নং গেটে একে পথসভায়

ব্যবসায়িরা অভিযোগ করে বলেন, কোন

নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে গত ২৭

এপ্রিল থেকে সম্পূর্ণ অবৈধ্য ভাবে

আমদানিকৃত পণ্যের মেনুফিষ্টে সিল মারছে

বিজিবি। এতে দেশে পণ্যবাহী ট্রাক প্রবেশে

যেমন সময় বেশি লাগছে তেমনি

ব্যবসায়িরা পড়ছেন ক্ষতির মুখে। এই

পথসভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাহিলি

সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি

আলহাজ্ব আবুল কাশেম আজাদ, সহ

সভাপতি আব্দুল আজিজ সর্দার, সাধারণ

সম্পাদক আব্দুর রহমান লিটন, বন্দর

বিষয়ক সম্পাদক জামিল হোসেন চলন্ত,

ট্রাক চালক সমবায় সমিতির সভাপতি

হামিদুল ইসলাম প্রমুখ।

প্রসঙ্গত সম্প্রতি সীমান্তের শূন্য রেখায়

আমদানিকৃত পণ্যের ম্যানুফিষ্টে বিজিবি

কর্তৃক সিল মারা, ব্যবসায়িদের সাথে

অসৌজন্যমূলক আচরণ ও হয়রানীর

প্রতিবাদে ব্যবসায়িরা এ ধর্মঘটের ডাক

দেয়। ১২ মে সোমবার হিলি বিজিবি

আইসিপি ক্যাম্পে এক মতবিনিময় সভায়

জয়পুরহাট ৩ বিজিবি সিও লে. কর্ণেল আ:

রাজ্জাক তরফদার বলেন, আমদানিকৃত কি

কি পন্য বাংলাদেশে প্রবেশ করছে সীমান্তের

শূন্যরেখায় সেটা দেখার অধিকার বিজিবির

রয়েছে। ওই সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন

হাকিমপুর উপজেলা চেয়ারম্যান আকরাম

হোসেন মন্ডল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার

আজাহারুল ইসলাম, থানা ভারপ্রাপ্ত

কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমান ও স্থানীয় প্রিন্ট

ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত

সংবাদিকবৃন্দ।