রবিবার ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ১লা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

২ হাজার কম্পিউটার ল্যাব হচ্ছে সারাদেশে

সারাদেশে ২ হাজার কম্পিউটার ল্যাব তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। দেশের উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত স্কুল, কলেজ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের দেওয়া জায়গায় তথ্যপ্রযুক্তিতে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে ক্লাবগুলো গড়ে তোলা হবে। একইসঙ্গে কম্পিউটার ল্যাবগুলো ভাষা শিক্ষা ক্লাব হিসেবেও গড়ে তোলা হবে।
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, কম্পিউটার ক্লাবগুলো মূলত ফ্রিল্যান্সারদের জন্য সহায়ক হবে। ফ্রিল্যান্সাররা ওই ল্যাব থেকে আউটসোর্সিং বিষয়ক বিভিন্ন প্রশিক্ষণ গ্রহণ, মেডিক্যাল ট্রান্সক্রিপশনের জন্য ভাষা শিক্ষা, যোগাযোগ রক্ষাসহ বিভিন্ন সহযোগিতা পাবেন। এছাড়া সংশ্লিষ্ট এলাকার শিক্ষার্থী এবং বেকার তরুণরা প্রশিক্ষণ নিয়ে প্রতিযোগিতামূলক চাকরির বাজারের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে পারবেন।
এছাড়া যারা চাকরির জন্য বিদেশে দেশে চান তারাও সিংশ্লিষ্ট দেশের ভাষা শিখতে পারবেন ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব থেকে।
আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ল্যাবে ৯টি ভাষা শেখানো হবে। এজন্য এ বিষয়ক একটি সফটওয়্যার ডিজাইনের কাজ কাজ চলছে। ল্যাবে ইংরেজি, আরবি, কোরিয়ান, চাইনিজ, রাশান, স্প্যানিশসহ আরও তিনটি ভাষা শেখানো হবে বলে তিনি জানান। গত সপ্তাহে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) এটি পাস হয়েছে। ফলে দ্রুত এ প্রকল্পের কাজ শুরু হবে।

আইসিটি বিভাগ সূত্র আরও জানায়, কম্পিউটার ও ল্যাঙ্গুয়েজ ল্যাব তৈরির জন্য ৩০০ কোটি টাকা বাজেট বরাদ্দ দিয়েছে সরকার। আইসিটি বিভাগের অধীনে আইসিটি অধিদফতর এটি বাস্তবায়ন করবে। অধিদফতর শুধু ল্যাব তৈরি করবে। কোনও অবকাঠামো তৈরি করবে না। ল্যাব স্থাপনে আগ্রহী স্কুল বা কলেজ একটি সুপরিসর কক্ষ দিলেই সেখানে ল্যাব সাজিয়ে দেওয়া হবে। নিতান্তই স্কুল, কলেজ জায়গা দিতে না পারলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি কোনও জায়গা দিলে সেখানেই ল্যাব গড়ে তোলা হবে।

এছাড়া উপজেলার বাইরে সম্ভাবনাময় ইউনিয়নেও এই ল্যাবরেটরি গড়ে তোলা হতে পারে। এলাকার জনবসতি, শিক্ষার হার, ফ্রিল্যান্সারদের সংখ্যা, এলাকার অবস্থান ইত্যাদির নিরিখে ইউনিয়ন নির্বাচিত হবে বলে জানা গেছে।
সূত্র জানায়, প্রতিটি ল্যাবে ১৭টি ল্যাপটপ, একটি ইন্টারনেট মডেম, উচ্চগতির ইন্টারনেট সংযোগ, প্রিন্টার, স্ক্যানার, মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর এবং ল্যাঙ্গুয়েজ কনটেন্ট থাকবে।

Spread the love