শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ ১৩ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘোড়াঘাটে নদীর পাড়ে ঘুরতে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের স্বীকার কিশোরী

লোটাস আহম্মেদ, ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে লোডশেডিং এর কারণে বিদ্যুৎ না থাকায় তীব্র গরমে বাড়ির পাশে নদীর তীরে ঘুরতে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের স্বীকার হয়েছে ১৪ বছর বয়সী এক কিশোরী। সে নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী।

বুধবার (৬ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টায় পৌরসভার পূবপাড়া-জোলাপাড়া এলাকায় করতোয়া নদীর পাড়ে এই ঘটনা ঘটে।

একই দিন রাতে ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে ২ জনের নাম উল্লেখ করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করলে পুলিশ রাতভর অভিযান চালিয়ে পৃথক দুটি জায়গা থেকে অভিযুক্ত ২ যুবককে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতার আসামীরা হলেন, ঘোড়াঘাট পৌরসভার জোলাপাড়া গ্রামের বিশু চন্দ্র দাসের ছেলে স্বপন চন্দ্র দাস (২৫) এবং পূর্বপাড়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে মোরসালিন মিয়া (২২)।

ধর্ষণের স্বীকার ওই কিশোরীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, বুধবার সন্ধায় ওই কিশোরী তার ১০ বছর বয়সী ফুফাতো বোনকে নিয়ে নদীর পাড়ে বাতাস খেতে গিয়েছিল। সেখানে তার আরেক কিশোর বন্ধুর সাথে দেখা হলে, তারা তিনজন সেখানে দাঁড়িয়ে গল্প করছিল।

এমন সময় গ্রেফতার আসামীরা সেখানে এসে উপস্থিত হয় এবং ওই কিশোরীর বন্ধুকে ভয়ভীতি দেখিয়ে সেখান থেকে চলে যেতে বাধ্য করে। এর এক পর্যায়ে পাশে থাকা একটি পাটক্ষেতে নিয়ে গিয়ে তারা ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে।

এসময় ওই কিশোরীর সাথে থাকা তার ফুফাতো বোন ভয়ে চিৎকার করলে, পাশ্ববর্তী লোকজন এগিয়ে আসে এবং অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়।

ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু হাসান কবির বলেন, আসামীদেরকে বৃহস্পতিবার দুপুরে দিনাজপুরের আদালতে এবং ভিকটিমকে ডিএনএ পরিক্ষার জন্য দিনাজপুর এম.আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আমরা ঘটনাস্থল থেকে ভিকটিমের পরিধান করা কাপড় সহ বেশ কিছু আলামত সংগ্রহ করেছি।

তিনি আরো বলেন, গ্রেফতার প্রধান আসামী স্বপন চন্দ্র দাসের বিরুদ্ধে পূর্বেরও বেশ কিছু মামলা চলমান রয়েছে।