বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১ ১১ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে নিষিদ্ধ জঙ্গী সংগঠন ইসলামী দাওয়াত ইনস্টিটিউট ১১ সদস্য গ্রেফতার

সুবল রায়, বিরল (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরে নিষিদ্ধ ঘোষিত ইসলামী জঙ্গী সংগঠন ইসলামী দাওয়াত ইনস্টিটিউট এর ব্যানারে অমুসলিমদের দাওয়াত দিয়ে ধর্মান্তরিত করার অভিযোগে দিনাজপুরে ৩টি থানায় পৃথক অভিযান চালিয়ে ১১ জনের বিরুদ্ধে পৃথক ৩টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। দিনাজপুর পুলিশ সুত্রের জানা গেছে  আজ শনিবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় তার কার্যালয়ে জানান, ঢাকা থেকে এন্টি টেরোরিজম সিটিটিসি ইউনিটের একজন সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ শফিকুল ইসলাম গতকাল রোববার সকালে দিনাজপুরে এসে পুলিশ সুপারের সহযোগিতা চায়। ওই সিটিটিসি ইউনিটের সহকারী পুলিশ সুপারের সহায়তার জন্য ৩টি পুলিশের অভিযান টিম দিনাজপুর সদর উপজেলার মহারাজা স্কুল মোড়, বিরল উপজেলার পার্শ্বে একটি মসজিদ ও বোচাগঞ্জ উপজেলায় একটি মসজিদে অভিযান চালিয়ে তাবলিগ জামাতের ছন্দবেশ ধারনে ইসলামী দাওয়াত ইনস্টিটিউটের ৪৩ জনকে আটক করা হয়। আটকদের গতকাল  দিন রাত পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদ করে ২৫ জন নিরাপরাধ তাবলিগ সমর্থন মুসুল্লীকে পাওয়া যায়। যারা ধর্মের বিশ্বাসে তাবলিগ সংগঠনের সাথে জড়িয়ে বিভিন্ন সময়ে ইসলামী দ্বীন কায়েমের জন্য তাবলিগে চিল্লায় যায়। এই ২৫ জনকে মুচেলকা নিয়ে গতকাল রোববার রাতে মুক্তি দেয়া হয়েছে। গুরুতর অপরাধের সাথে জড়িত ৭ জনকে সিটিটিসি ইউনিটের সহকারী পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে গতকাল শুক্রবার রাত ১২টায় দিনাজপুর থেকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। এদের নেতা মুফতি জোবায়ের আহাম্মেদ পরিচালক, ইসলামি দাওয়াত ইনস্টিটিউট, যাত্রাবাড়ী, সায়দাবাদ, মালিবাগ থেকে মুগদা হয়ে বিশ্বরোড হয়ে মান্ডা ঢাকা। তাকে পালিয়ে যাওয়ার সময় সৈয়দপুর  বিমানবন্দরে আটক করতে ব্যর্থ হলেও গতকাল শুক্রবার রাত ৮টায় ঢাকা বিমান বন্দরে সৈয়দপুর থেকে ঢাকাগামী  নবএয়ার বিমান থেকে নামার পর তাকে সিটিটিসি ইউনিট পুলিশ তাকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে। এদিকে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া অপর ১১ জন দাওয়াতী ইসলামী ইনস্টিটিউটের সদস্যের বিরুদ্ধে দিনাজপুর কোতয়ালী, বিরল ও বোচাগঞ্জ থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে আজ শুক্রবার রাত ১২টায় পৃথক ৩টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় কোতয়ালী থানায় ৫ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত অনেকের নামে আসামী করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত ৫ আসামী হলেন ঝিনাইদহ জেলার হরিনাকুন্ডু উপজেলার হরিনাকুন্ডু গ্রামের আবুল কাশেমের পুত্র মোঃ রিদুয়ানুল হক কাভী (২১), কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম থানার সরপুটি গ্রামে কামাল উদ্দিন মজুমদারের পুত্র মোঃ সাপাত আহাম্মেদ বিন কামাল (২৭), চট্টগ্রাম মীরসরাই উপজেলার ওহেদপুর গ্রামের রুহুল আমিনের পুত্র মোঃ মহসিন ভুইয়া (২৪), কিশোরগঞ্জ জেলার হুসেনপুর উপজেলার হরহটর আলগি গ্রামের হাবিবুর রহমানের পুত্র মোঃ আব্দুর রহমান (২৪) ও নরসিংদী সদর উপজেলার মাধববাটি এলাকার ওহেদুল বারীর পুত্র মোঃ নাফিজ আবির (৩০)। এই মামলায় কোতয়ালী থানার এসআই মোনায়েমুল ইসলাম বাদী হয়েছেন এবং মামলাটি তদন্ত করছেন এস আই শামীম হক। বিরল থানার মামলায় ৩ জনের নাম এজাহারে  উল্লেখ করে অজ্ঞাত নামা অনেক আসামী রয়েছে। গ্রেফতারকৃত ৩ আসামী হলেন রংপুর বদরগঞ্জ উপজেলার মধুপুর দোলাপাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের পুত্র মোঃ ওহেদুজ্জামান (২৩), রংপুর কাউনিয়া উপজেলার নিজ পাড়া গ্রামের জালাল উদ্দিনের পুত্র মোঃ মনিরুল ইসলাম (২২) ও নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার আব্দুস সামাদ সাহেদের পুত্র মোঃ সজল @ সাব্বীর আহাম্মেদ (৩০)। মামলাটির বাদী বিরল থানার এসআই নাজমুল হুদা ও তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই নজরুল ইসলাম। বোচাগঞ্জ থানার মামলায় ৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত নামা অনেকের নাম রয়েছে। এই মামলায় গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন রংপুর কোতয়ালী থানা মুন্সিপাড়া নকিমউদ্দিনের পুত্র মোঃ আবু সায়েদ হাসান (২৮), চাঁদপুর সদর উপজেলার হামানকর্দি গ্রামের মোঃ মোস্তফা খানের পুত্র মোঃ জুয়েদ খান (২৫) ও নীলফামারী ডিমলা উপজেলার পশ্চিম খলিবাড়ী গ্রামে ইয়াকুব মিয়ার পুত্র হুমায়ুন কবীর (২৬)। পুলিশের সূত্রটি জানায় গ্রেফতারকৃতদের নিকট থেকে আলামত হিসেবে মোবাইল ফোন, ওই সংগঠনের লিফলেট, জিহাদী বই এবং বিভিন্ন ধর্মের লোকজনদের দাওয়াত দিয়ে ধর্মান্তরিত করা। ডিজিটাল পদ্ধতিতে অনলাইনে প্রশিক্ষণের মেমোরি কার্ড ও অন্যান্য উপকরন জব্দ করা হয়েছে। তাদের মোবাইলে প্রাপ্ত নাম্বার ও মেমোরি কার্ডে ব্্যবহৃত তথ্য অনুসরন করে তদন্ত কাজ ডিজিটাল পদ্ধতিতে চলমান রয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা তাদের কেন্দ্রীয় নেতা মুফতি জোবায়ের আহাম্মেদের অনলাইনে দাওয়াতের কার্যক্রম শুরু করতে গত ১৬ সেপ্টেম্বর ঢাকা থেকে আগত ইসলামী দাওয়াত ইনস্টিটিউটের নেতৃত্বের দিনাজপুর জেলায় ৩টি উপজেলার ৩টি মসজিদকে বেছে নিয়ে এই কার্যক্রম শুরু করেছিল। বিষয়টি ঢাকা  সিটিটিসি ইউনিটের নজরে আসলে তাদের তত্ত¡াবধানে গত শুক্রবার দিন ভর রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে ওই দলের সদস্যদের গ্রেফতার করা সম্ভব হয়েছে। এই ঘটনার সাথে সম্পৃক্তদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। দিনাজপুর কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক মোঃ মনিরুজ্জামান জানান, পুলিশের বিশেষ ক্ষমতা আইনে ১৫(৩) ধারায় গ্রেফতারকৃত ৩টি মামলায় ১১জনকে আজ শনিবার দুপুর ২টায় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিঃ লিমেন রায় এর আদালতে সোর্পদ করে তদন্তকারী কর্মকর্তাগণ প্রত্যেকে জিজ্ঞাবাদের জন্য ৫দিনের রিমান্ড আবেদন করে। বিচারক আজ শনিবার বিকেল ৪টায় ওই ৩টি মামলা রিমান্ড শুনারীর জন্য আগামীকাল রোববার আসামীদের উপস্থিতিতে সংশ্লিষ্ট আদালতে হাজির করতে আদেশ দিয়ে তাদের জেল-হাজতে প্রেরণ করেন। 

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email