সোমবার ৩ অক্টোবর ২০২২ ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আরো এক সেকেন্ড অপেক্ষা করতে হবে বিশ্বের সবখানে

২০১৫ সালটি লিপ ইয়ার নয়। কিন্তু এ বছরে লিপ সেকেন্ড রয়েছে। আমরা লিপ সেকেন্ড শব্দটির সঙ্গে ততটা পরিচিত নই। কিন্তু ২০১৫ সালের ৩০ জুন ঘটতে চলেছে লিপ সেকেন্ডের ঘটনা।  আজকের দিনের মেয়াদ ১ সেকেন্ড বেশি হবে। এক দিন ২৪ ঘণ্টা, অর্থাৎ ৮৬,৪০০ সেকেন্ড। কিন্তু আজ হবে ৮৬,৪০১ সেকেন্ড। নাসার পক্ষ থেকে এ পুরো বিষয়টির কারণ বিস্তারিতভাবে জানানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে মেরিল্যান্ডের গ্রিনবেল্ট-এর নাসার গডার্ড স্পেস ফ্লাইট সেন্টারের তরফ থেকে ড্যানিয়েল ম্যাকমিলান জানিয়েছেন, আহ্নিক গতির সঙ্গে তাল মেলানোর জন্য এই জুন মাসে অতিরিক্ত ১ সেকেন্ড যোগ করা হবে। কাজেই আজ ৩০ জুন রাত ১১ টা ৫৯ মিনিট ৫৯ সেকেন্ডের পর ১ জুলাইয়ের সূচনা হবে না। আরো এক সেকেন্ড অপেক্ষা করতে হবে বিশ্বের সবখানে।

তিনি আরো জানান, পৃথিবীর গতি ক্রমশ ধীর হচ্ছে। তাই কো-অর্ডিনেটেড ইউনিভার্সাল টাইম, বা ইউটিসি এবং অ্যাটমিক টাইম একই রাখতে ইউটিসি-তে ১ সেকেন্ড যোগ করা হবে। গ্রহের সঙ্গে গ্রহের আকর্ষণ বলের কারণে ১৮২০ সাল থেকে কোনো সৌর দিন পুরোপুরো ৮৬,৪০০ সেকেন্ড স্থায়ী হয় না। মাত্র ২ মিলিসেকেন্ড করে কম হচ্ছে দিনের সময়। এটাকে খুব বেশি সময় বলে মনে হয় না। কিন্তু এই সামান্য ২ মিলিসেকেন্ড যোগ হয়ে বছর শেষে এক সেকেন্ড সময় পূর্ণ করে। সাধারণত আবহাওয়া, জলবায়ু, ঋতুর পরিবর্তন, সমুদ্রের অবস্থা, ভূগর্ভস্থ পানি এবং পৃথিবীতে বরফের মজুদের নানা পরিবর্তনে দিনের সময়সূচির হের-ফের হয়। সেই সামান্য সময় এক সময় ১ সেকেন্ড পূর্ণ করে।

ম্যাকমিলান ব্যাখ্যা করে বলেন, প্রতিদিন ঘড়িতে ২৩:৫৯:৫৯-এর পরই ০০:০০:০০ অর্থাৎ পরের দিন হয়। কিন্তু ৩clock 2০ জুন ২৩:৫৯:৫৯ এর পর হবে ২৩:৫৯:৬০। এবং তার পরে হবে ০০:০০:০০, অর্থাৎ পরের দিন ১ জুলাইয়ের শুরু।

তবে এ ব্যাপারটি এই প্রথম ঘটছে না। ১৯৭২ সালে প্রথমবারের মতো লিপ সেকেন্ড যোগ করা শুরু হয়।

এই এক সেকেন্ড যোগ করার ফলে কম্পিউটার ব্যবস্থায় ঝামেলা তৈরি করতে পারে। এটা সময়-সংক্রান্ত ঝামেলা। যেমন- বিশ্বের স্টক ব্যবসায়ী, কম্পিউটার প্রোগ্রামার এবং এয়ারলাইন প্রতিষ্ঠানগুলো এই বাড়তি এক সেকেন্ডকে কিভাবে হিসেবের মধ্যে ফেলবে? আগে থেকে প্রস্তুতি না থাকলে হিসেব গোলমেলে হয়ে যাবে। ২০১২ সালে এই বাড়তি সেকেন্ডের জন্যে রেডিট, লিঙ্কডইন, গিজমোদো এবং ফোরস্কয়ার-এর মতো সোশাল মিডিয়াগুলো নানা সমস্যার সম্মুখীন হয়েছিল।

তবে হঠাৎ করেই গোটা বিশ্বের সময়সূচিতে ১ সেকেন্ড যোগ করা বেশ সমস্যার বিষয়। এর বিকল্প এবং আরো ভালো কোনো সমাধান বের করার পক্ষে মত দিয়েছেন গডার্ড স্পেস ফ্লাইট সেন্টারের আরেক গবেষক চোপো মা।
সূত্র : লাইভ সায়েন্স

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email