শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিদ্যালয় খোলার উৎসবে মেতেছে ইব্রাহীম মেমোরিয়াল শিক্ষা নিকেতনের শিক্ষার্থীরা

মীর কাসেম লালু, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ॥ বৈশিক মহামারী করোনা ভাইরাসের তান্ডবে ঝরে গেছে সারা দেশের শিক্ষার্থীদের ১৮ মাসের স্কুল জীবন। পড়ালেখা,আনন্দ আর খেলাধুলা থেকে অনেক শিক্ষার্থী বঞ্চিত ছিল। আজ আবার সেই আনন্দ উৎসবে মেতে উঠেছে শিক্ষার্থীরা। স্কুলের মাঠের সবুজ ঘাসে শিশুদের কচি পায়ের স্পর্শে মুখরিত মাঠের এই দৃশ্য দেখে স্মৃতিকাতর হয়ে পড়েছেন শিক্ষক মোতাহার হোসেন।

তাই দৌড় ঝাপ আর উৎসবে মাতোয়ারা শিশু শিক্ষার্থীদের বাধা দিচ্ছেন না ইব্রাহীম মেমোরিয়াল শিক্ষা নিকেতনের সব চাইতে ভাবগম্ভীর স্যার মোঃ সায়েম । শিশুরা একে অন্যর সঙ্গে এমন ভাবে কথা বলছে যেন প্রিয়জনকে হারিয়ে আবার ফিরে পেয়েছে ।

ইব্রাহীম মেমোরিয়াল শিক্ষা নিকেতনের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী উম্মে হানি জানায়, স্কুল খুলবে শুনে গতকাল মনে হচ্ছিলো জামা কাপড় পড়ে রাতেই রেডী হয়ে থাকি। আজ স্কুলে এসে এতো আনন্দ লাগছে যে মনে হচ্ছে আজ ঈদের দিন।

একই বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র রাফিদ জানায়, করোনার কারণে স্কুলে আসতে পারিনি, বাড়ী থেকে বেরুতে পারিনি,দুরে কোথাও বেড়াতে যেতে পারিনি। আজ কিযে খুশি লাগছে, মনে হচ্ছে পাখির মত উড়ে বেড়াই সারা স্কুল।

স্কুলে প্রবেশ পথে তাপমাত্রা মাপা যন্ত,হ্যান্ড সেনিটাইজার,সাবান পানি দিয়ে হাত ধোয়া সহ বিভিন্ন নিয়ম কানুন পেরিয়ে ঢুকতে হচ্ছে শিক্ষার্থী সহ সকলকে।

অভিভাবক রবিউল ইসলাম জানান, করোনার কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দির্ঘদিন বন্ধ থাকায় শিশুরা ঘরবন্দির কারনে পড়া লেখায় আগ্রহ হরিয়ে ফেলেছিলো । স্কুল খোলায় তাদের বন্দি জীবনে কিছুটা আনন্দের সঞ্চার হয়েছে। খেলা ধুলায় আনন্দে উচ্ছসিত এই অঙ্গন শিশুদের মানসিক প্রশান্তির খোড়াক জোগাবে।

শিক্ষিকা মোছাঃ মমতা বেগম জানালেন বাচ্চাদের দুষ্টুমি,অভিযোগ আর কোলাহল কি যে মধুর তা হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছি। ওরা আমার সন্তানের মত গত ১৮মাস আমি ওদের মধুর জ্বালাতন থেকে বঞ্চিত ছিলাম। আজ ওদের দেখে মনে শান্তি পাচ্ছি । এভাবেই যেন মুখোরিত থাকে আমাদের অঙ্গন।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email